BB News 24 Hours

Operating as usual

12/15/2020

😷

08/15/2017

দেশের দুর্যোগ থেকে আল্লাহ সবাইকে রক্ষা করো। আমিন

03/09/2017

আল্লাহ সহায়।

12/21/2016

আজ কৃতঘ্য।

09/17/2015

[২০০০ সাল]
একজন খৃষ্টান ডাক্তার পৃথিবীর বুকে ঘোষণা দিল,"কুরআন মিথ্যা,ইসলাম মিথ্যা," সাথে তার প্রমাণও দিয়ে দিলো আর কুরআন থেকে ৩০টি ভুল বের করল।
[২০০১ সাল]
কোনো মুসলিম এলো না তার জবাব দেয়ার জন্য।
[২০০২ সাল]
সৌদি আরবের কোনো মুফতী,আলেম শায়েখ এলো না তার জবাব দিতে।
[২০০৩ সাল]
দুবাই থেকেও কোনো পীর উলামা এলো না তার জবাব দিতে।
[২০০৪ সাল]
অনলাইনেও এই নিয়ে কোনো মুসলিম জবাব দিলো না।
[২০০৫ সাল]
মারা গেলেন আহমেদ দিদাত।
[২০০৬ সাল]
যে একটা আশা ছিলো সেই তো মরে গেলো(গুজব)
[২০০৭ সাল]
এই নিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধে সেই খ্রিষ্টান ডাক্তারের সব অপবাদ নিয়ে ইসলামের বিরুদ্ধে বই লেখা শুরু হলো। ইসলাম নিয়ে তামাশা বাড়তেই থাকল।
[২০০৮ সাল]
ভারত......যে দেশে মুসলিমদের কোনো সম্মান নেই। নেই তাদের কোনো স্বাধীন কোনো অগ্রাধিকার। ঘটে বাবরি মসজিদ ধ্বংস ইত্যাদি ইসলাম বিদ্বেষী ঘটনা। সে দেশ থেকে আসলো এক চিকন শ্যামলা বর্ণের লোক। পেশায় একজন ডা:।........ এই তার পরিচয়। লোকটি গেলো জনৈক খ্রিষ্টানের কাছে। গিয়ে তার সাথে ৪ ঘণ্টা ২৫ মিনিট ২০ সেকেন্ডের বিতর্ক করলো। সে সফল হলো এবং কুরআনের বিরুদ্ধে সব মিথ্যা অপবাদের জবাব তো দিলোই সাথে বাইবেল থেকে ১০০টারও বেশি ভুল ধরিয়ে দিলেন। আর শুরু করলেন এক নবদিগন্তের অভিযাত্রা। লোকটি আর কেউ নন,,, ডঃ_জাকির_নায়েক। আর আজ কিছু মুসলিম এসেছে তার ব্যবচ্ছেদ করতে। প্রশ্ন একটাই,"তখন আপনারা কোথায় ছিলেন মিয়ারা? "সে একজন মানুষ। কোন দিক থেকে তার ভুল হতেই পারে। তার ভুল টুকু দেখে কি অবদান টুকুকে ছুরে ফেলে দিবো। তার পরিচালনায় একটি টিভি চ্যানেল আছে। সেই ইসলামিক টিভিতে কোন আশালিন কিছু প্রচার করে না। এমন কি কোন বিজ্ঞাপন দেওয়া হয় না। আর কত করবে একজন মানুষ? এখানে আমাদের অবস্থান কোথায়? — একজন মানুষ ভূল করতেই পারে এটা স্বাভাবিক। তাকে তাকে তার ভূল ধরিয়ে দাও। নতুবা সাহস আর এলেম থাকলে পারলে তার সামনা সামি গিয়ে তার সাথে বিতর্ক করুন। তা না করে উল্টো তাকে মোনাফেক, কাফেরদের দালাল ইত্যাদি বলাটাতো মুসলমানের আওতায় পড়েনা। উনি (জাকির নায়েক) হয়তো ভূল করছে। সবশেষেতো খৃষ্টানের সাথে ইলমি মোকাবেলা করেছেন। তামাসার পথ বন্ধ করেছেন। কোরআনের যে ১০টি ভূল ধরেছিলো খৃষ্টান তাও উনি মিথ্যা প্রমাণ করেছেন। এরসাথে বাইবেলের প্রমাণ সহকারে ১০০টিরও বেশি ভূল বের করেছেন। কিন্তু আপনারা কি করেছেন। পেরেছেন কি ঐ খৃষ্টানের মুখোমুখি হয়ে তার (কুরআনের বিরুদ্ধে) বক্তব্য মিথ্যা প্রমাণ করতে? কি পেরেছেন? পরেন তো শুধু স্টেজে উঠে জাকির নায়েকের নাম ধরে মোনাফেক বলতে। ইয়াহুদিদের দালাল বলতে। কারো বিরুদ্ধে না কোনো কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকলেও সওয়াব হাসিল করা যায়।

08/31/2015

কুশিয়ারা নদীর পানি ঢুকে বিয়ানিবাজারে বন্যায়
প্লাবিত বিস্তৃর্ণ এলাকা
চরম দূভুগে পানিবন্দী হাজার মানুষ
মোস্তফা অনাক রাজ
বিয়ানিবাজার প্রতিনিধি::-
উজানের ঢলে গত কয়েকদিন থেকে দেশের প্রতিটি
নদ-নদীতে পানি বাড়তে থাকায় সারা দেশে
মারাত্মক বন্যার আশংকা দেখা দিয়েছে। এরই মধ্যে
দেশের নিম্নাঞ্চলসহ বেশ কয়েকটি জেলার বিস্তৃর্ণ
এলাকা প্লাবিত হয়েছে। সেই সাথে নদ-নদীতে বৃদ্ধি
পাচ্ছে পানি। যার ফলে সর্বত্র দ্বেগ উৎকণ্ঠা বিরাজ
করছে। কেননা পানি বাঁড়ার সাথে সাথে যেমন
মারাত্মক বন্যার আশংকা থাকে তেমনি আশংকা
থাকে মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা নিয়ে।
দেশের প্রতিটি নদ-নদীর মতো কুশিয়ারা নদীর
পানিও মারাত্মক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে
কুশিয়ারা নদীর পানি বিয়ানীবাজারের শেওলা
পয়েন্টে বিপদ সীমার ২২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে
প্রবাহিত হচ্ছে। যার কারণে গত বুধবার রাতে নদী
তীরবর্তী কয়েকটি ডাইক ভেঙ্গে প্লাবিত হয়ে গেছে
উপজেলার চারটি ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম।
বন্ধ করে দেয়া হয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্টান। তাছাড়া
নদী সংলগ্ন স্থানীয় কয়েকটি বাজারও ডুবে গেছে এ
পানিতে।
স্থানীয়দের সাথে কথা বলে ও সরেজমিনে গিয়ে
দেখা যায়, গত কয়েকদিন থেকে কুশিয়ারা নদীর
পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তারা অনেকটা উদ্বেগ উৎকণ্ঠার
মধ্যে দিন পার করছিলেন। এরই মধ্যে বুধবার গভীর
রাতে নদী তীরবর্তি ডাইক ভেঙ্গে যাওয়ায় প্লাবিত
হতে তাকে বিস্তৃর্ণ এলাকা । ধীরে ধীরে ভেঙ্গে
যায় আরো বেশ কয়েকটি ডাইক (বাঁধ)। যার কারণে
প্লাবিত হয়ে পড়ে উপজেলার চারখাই ,দুবাগ,শেওলা
ও মুড়িয়া ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি গ্রাম। এছাড়াও
পানিতে তলিয়ে যায় দুবাগ ইউনিয়নের দুবাগ স্কুল
এন্ড কলেজ, দুবাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও
স্থানীয় দুবাগ বাজার, শেওলা ইউনিয়নের কাকরদিয়া
তেরাদল উচ্চ বিদ্যালয়, তেরাদল-১ সরকারি প্রাথমিক
বিদ্যালয়,মুড়িয়া ইউনিয়নের শতাধিক বাড়ি ঘরসহ
বিয়ানীবাজার-সিলেট অভ্যন্তরীন সড়ক, শেওলা শুল্ক
স্টেশনের রাস্তাসহ প্রধান ও গ্রামীণ সড়ক। এদিকে
আকস্মিক বন্যার পানিতে বাড়ি-ঘর তলিয়ে যাওয়ায়
অনেকটা বেকায়দায় পড়ে গেছে পানিতে তলিয়ে
যাওয়া বসত ঘরের বাসিন্দারা। তারা নিজেদের ঘর
বাড়ি ও পরিবার রক্ষা যার যার মতো চেষ্টা করে
যাচ্ছেন। নদীর পানি প্রতিরোধ করতে বাঁশ, টিন, বালু
ভর্তি বস্তা দিয়ে নিজেদের রক্ষার জন্য সংগ্রাম
করে যাচ্ছেন পানিবন্দী মানুষেরা। তারা আশা
করছেন, তাদেরসহ বন্যা দূর্গত মানুষদের রক্ষায় সরকার
শীর্ঘ্রই সহযোগীতার হাঁত বাড়িয়ে দেবে।
এব্যাপারে বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী
অফিসার মুহাম্মদ আসাদুজ্জামান বলেন, বন্যার
পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। আমরা শীর্ঘ্রই
পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তিনি বলেন, স্থানীয়
ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের বলা হয়েছে আশ্রয়
কেন্দ্র খোলার দরকার হলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা
নিতে।

07/29/2015

আমার সেই গল্পটা এখনো শেষ হয়নি
শোন,পাহাড়টা, আগেই
বলেছি ভালোবেসেছিল মেঘকে
আর মেঘ
কিভাবে শুকনো খটখটে পাহাড়টাকে
বানিয়ে ফেলেছিল ছাব্বিশ বছরের
ছোকড়া।
সে তো আগেই শুনেছো
সেদিন ছিল পাহাড়টার জন্মদিন
পাহাড় মেঘকে বলল, আজ তুমি লাল
শাড়ি পড়ে আসবে
মেঘ পাহাড়কে বলল, আজ তোমাকে স্নান
করিয়ে দেব চন্দন জলে
ভালোবাসলে নারীরা হয়ে যায় নরোম
নদী
পুরুষরা জ্বলন্ত কাঠ।
সেইভাবেই সেইভাবেই মেঘ ছিল
পাহাড়ের আলিঙ্গনের আগুনে
পাহাড় ছিল মেঘের ঢেউ জলে
হঠাৎ আকাশ জুড়ে বেজে উঠল ঝড়ের যত
ঝম্ফ
ঝাকড়া চুল উড়িয়ে ছিনতাইয়ের
হুমকিতে ছুটে এল এক ঝাঁক হাওয়া
মেঘের আঁচলে টান মেরে বলল
ওঠ ছুঁড়ি তোর বিয়ে।
এখনও শেষ হয়নি গল্পটা
বজ্রের সঙ্গে মেঘের বিয়ে হয়ে গেল
ঠিকই
কিন্তু পাহাড়কে সে কোনদিনই
ভুলতে পারলো না
বিশ্বাস
না হয়তো চিড়ে দেখতে পারো পাহাড়টার
হাড়-পাজর
ভেতরে থৈ থৈ করছে শত ঝরনার জল।

07/24/2015

"বিয়ানীবাজারে স্কুল ছাত্রকেঅপহরণের চেষ্টা শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতংক।"ঃ ২৪/০৭/২০১৫.
বিয়ানীবাজারে পল্লী থেকেঅষ্টম শ্রেণীর একস্কুল ছাত্রকে অপহরণের চেষ্টার খবর পাওয়া গেছে।এ ঘটনায় থানায় অজ্ঞাতনামা ৪/৫ ব্যক্তিকেআসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।পুলিশ এ ঘটনায় কাউকে আটক করতে পারেনি। এসংবাদ উপজেলা জুড়ে চাউর হলে শিক্ষার্থী ওঅভিভাবকদের আতংক দেখা দিয়েছে।স্কুল ছাত্র রেদওয়ানের জানিয়েছে, বৃহস্পতিবারসকাল ১১ টায় স্কুল থেকে কোচিং শেষে বাড়িফেরার সময় স্কুল থেকে অনুমানিক ৫০ গজ দূরে গাড়ীজন্য অপেক্ষা করছিল দুবাগ স্কুল এন্ড কলেজের অষ্টমশ্রেণীর ছাত্র উত্তর দুবাগ গ্রামের দুবাই প্রবাসীশাহাব উদ্দিনের পুত্র রেদওয়ান আহমদ (১৩)।কিছুক্ষণ পরে কালো গ্লাসের একটি মাইক্রবাস তারসামনে দাঁড় করে এক ব্যক্তি তাকে জিজ্ঞাস করেকোথায় যাবে। তখন সে বাড়িতে যাবে বলে ওইব্যক্তিকে জানায়। তখন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তি গাড়ীথেকে নামিয়ে রেদওয়ানকে গাড়ীতে তুলে রুলদিয়ে তার মাথায় আঘাত করে অজ্ঞান করেঅজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যাওয়ার জন্য রওয়ানা দেয়।কিছুক্ষন পরে রেদওয়ানের জ্ঞান ফিরলে দেখতেপায় গাড়ী এক ব্যক্তি হেলমেট পরে পিছনের সীটেবসে আছে এবং অপর ব্যক্তিরা একটি দোকানেরসামনে অবস্থান করেছে। তখন রেদওয়ান গাড়ীথেকে নেমে দৌড় দিয়ে পাশ্ববর্তীবিয়ানীবাজার পৌর শহরের দক্ষিণ বাজারেরমোকাম মসজিদের ভেতর আশ্রয় নেয় এবং বিষয়টিমসজিদে থাকা লোকদের অবগত করলে রেদওয়ানকেনিয়ে এগিয়ে আসার পূর্বেই অপহরনকারীরাপালিয়ে নিরাপদে চলে যায়।এ প্রসঙ্গে বিয়ানীবাজার থানার অফিসারইনচার্জ (ওসি) জুবের আহমদ বলেন, এ ব্যাপারেথানায় জিডি হয়েছে। বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ খবরনেয়া হচ্ছ

07/06/2015

বিপদে পড়লে মহানবী (সা) এই ৩টি
দোয়া পাঠ করতে বলেছেন
ইসলাম ডেস্ক: আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)
মহান আল্লাহর দীন প্রতিষ্ঠাকালে বহু বিপদের
সম্মুখীন হয়েছেন। বেশ কয়েকবার কাফেরদের
বিরুদ্ধে লড়াই করতে হয়েছে। অনেক জুলুম, অন্যায়,
অত্যাচার পাড়ি দিয়ে তিনি ইসলাম প্রতিষ্ঠা করেছেন।
বিপদের সময় মহানবী (সা.) যে ৩টি দোয়া পাঠ করতেন
সেই দোয়াগুলো উম্মতদেরও পাঠ করাতে
বলেছেন।
দোয়া ৩টি হলো-
১। সাদ ইবনে আবি ওক্কাস রা. বলেন, নবীজি সা. দুঃখ-
কষ্টের সময় বলতেন :
লা-ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহানাকা ইন্নি কুনতু মিনাজ জোয়ালিমিন।
(দোয়া ইউনূস)
অর্থ : একমাত্র তুমি ছাড়া কোনো মাবুদ নেই। তোমার
পবিত্রতা বর্ণনা করছি। নিশ্চয়ই আমি সীমালঙ্ঘনকারী।
(তিরমিজি : ৩৫০০)
২। আসমা বিনতে ওমাইর রা. থেকে বর্ণিত, নবীজি সা.
বলেন, আমি কি তোমাদের এমন কিছু শিখিয়ে দেব না যা
তুমি দুশ্চিন্তা ও পেরেশানির মধ্যে পড়বে। সাহাবী
বললেন, অবশ্যই শেখাবেন। নবীজি বললেন,
দোয়াটি হচ্ছে : ‘আল্লাহু আল্লাহ রব্বী লা উশরিকু বিহি
শাইয়ান।’
অর্থ : আল্লাহই আল্লাহ আমার প্রতিপালক। আমি তার
সঙ্গে কোনো কিছু শরিক করি না। (আবু দাউদ : ১৫২৫)
৩। আনাস রা. থেকে বর্ণিত, নবীজি সা. বলেন :
আল্লাহুম্মা লা সাহলা ইল্লা মা জায়ালতাহু সাহলান, ওআনতা
তাজআলুল হুযনা সাহলান ইযা শিইতা।
অর্থ : ইয়া আল্লাহ, কোনো বিষয় সহজ নয়। হ্যাঁ,
যাকে তুমি সহজ করে দাও। যখন তুমি চাও তখন তুমি
মুশকিলকে সহজ করে দাও। (ইবনে হিব্বান : ৯৭৪)
আমাদের পেজ নতুন তাই লাইক দিতে ভুলবেন না। আপনি
ইতিমধ্যে লাইক দিয়ে থাকলে আমার পেজটি শেয়ার
করতে পারেন

06/08/2015

ব্রেকিং নিউজ
সিলেট বাংলাদেশ থেকে আলাদা
হয়েগেছে।
★সিলেট একটি দেশের নাম★
ইউনাইটেড স্টেট অব সিলেট
(USS) :------
সিলেট একটি দেশ হওয়ায় খবরটি সিলেটবাসীর জন্য সিলেটি ভাষায় বলছি।
১) সিলোট অইলো আগলা (আলাদা) এখটা দেশ।
২) সিলোটর রাজধানী অইলো
জিন্দাবাজার।
৩) গ্যাস, সিমেন্ট, চা ফাতা আর
ফাত্তরর একক সাম্রাজ্য।
৪) সিলোটর জাতীয় বন রাতারগুল।
৫) সমুদ্র সৈকত লালা খাল।
৬) ন্যাশনাল ভাষা ফাইলায়গিয়া সিলোটি।
৭) সিলোটি মুদ্রা টেখা।
৮) সমুদ্র বন্দর অইল খালিঘাট।
৯) জাতীয় পাখি 'জালালি খবুতর'।
১০) জাতীয় খেলা টাংখেলা।
১১) ''ব্লু বার্ড স্কুল এন্ড
কলেজ'' ওইল SUET
১২) সিলেট ওডিটরিয়াম অইল সিলেটর
সংসদ ভবন।
১৩) সিলেটো চাইটটা প্রদেশ অইল
সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগন্জ
আর
সুনামগন্জ এবং সব উফজেলা অইল
জেলা।
১৪) জাতীয় ফল গুয়া (সুপারি)।
১৫) জাতীয় মসজিদ অইল
কোর্টপয়েন্ট
জামে মসজিদ।
১৬) সিলেটি টেখার মানঃ ১টেখা
=১২০টাকা =১পাউন্ড
১৭) অগ্রগামী অইল জাতীয় মহিলা কলেজ আর
সিলেট মহিলা কলেজ
সিলেট মহিলা ইউনিভার্সিটি ।
১৮) পাইলট স্কুল অইল International
ইউনিভার্সিটি।
১৯) সিলেটো কোনচিড়িয়াখানা
নাই তবে শ্রীমঙ্গল একটা আছে
কারন
সিলেটি হকলর বুকর পাঠা বেশি।
তারা বনও গিয়া বিনা ডরে সব পশু
পাখি দেইখা আইব।
২০) জাতীয় জাদুঘর অইব ''হাছন রাজা
জাদুঘর'' জিন্দা বাজার।
২১)সিলেটিগো Vowelঅইল S,Y,L,H,E,T
২২) ব্রিটিশ পাসপোর্ট ধারীরা
বিনাবাঁধায় সিলেট প্রবেশ করত
ফারবা।
২৩)সিলেটি অইতে অইলে বাবা মা
সিলেটি ওয়া লাগব, না অইলে
সিলেট জন্মনেওয়া লাগব। আর
নাগরিকত্ব পাইতে অইলে সিলেটি
কাউরে বিয়া করা লাগব।
২৪)বাংলাদেশী খেউ আমরার দেশো আইতে ঐলে
আগে ভিসা কিনা লাগবো।
২৫) 5G ইন্টারনেট থাকবো একবারে
ফ্রী।
২৬) আমরার দেশও কুনু দল নাই, একটা
অও
দল সিলেটি দল।
২৭) বিজয় দিবস অইলো ১৪ ডিসেম্ভর।
২৮) স্কুল নাই ডাইরেক্ট কলেজ।
২৯) জাতীয় সংগীত
"সুরমা গাঙ্গোর পারো
বাড়ি
শাহজালালের উত্তরসূরী
দেশ বিদেশে বেটাগিরী
আমরা হক্কল সিলটী
আমরা হক্কল সিলটি
৩০) বিমান বন্দর অইল ওসমানী
আন্তর্জাতাকবিমান বন্দর, সিলেট।
৩১) ফেঞ্চুগঞ্জ অইল সার
কারখানা।
ছাতক অইল সিমেন্ট কারখানা আর
ভুলাগঞ্জ পাত্তরের লাগি
প্রসিদ্ধ যা
আমরার সিলেটে অবস্তিত।
ছোটমুটো একটা দেশোর লাগিয়া আর কিছু না কওয়াটা ভালা

হাহাহাহাহাহা

05/20/2015

জনম দুঃখিনী মা, কথাটা প্রচলিত থাকতো না যদিনা বাবারা মায়েদের প্রতি আরো একটু সহানুভূতিশীল হতেন।
অনেক শিশুই দুর্বল স্বাস্থ্য , সল্প মেধা, দৃষ্ট শক্তিতে সমস্যা ইত্যাদিতে ভোগে গর্ভাবস্থায় মায়ের মানুষিক অশান্তির কারনে, প্রতিবন্ধী হওয়ার কথা না হয় বাদই দিলাম।বর্তমানে মায়ের শারিরিক ব্যপারে খেয়াল রাখা হলেও মানুষিক স্বাস্থ্যর ব্যপারে আমারা এখনো উদাসীন।
সরকারী ভাবে মায়েরা মাতৃ কালীন ছুটি ও সুযোগ সুবিধা পেলেও বেসরকারি চাকরীতে তার অনেক কিছু থেকেই বঞ্চিত মায়েরা।
কর্মজীবী মায়েদের এত দুর্দশা থাকতো না, যদি না কর্পোরেট প্রভূরা তাদের প্রতিষ্ঠানের মায়েদের শিশুদের জন্য ছোট্ট করে ডে কেয়ার সেন্টারের ব্যবস্থা রাখতো।
আমরা মাকে শুধু ত্যগের মূর্ত প্রতিক হিসেবেই দেখি, আমাদেরও যে মায়ের জন্য কিছু করার আছে তা ভাবি না।
ছেলেরা মায়ের প্রতি দায়িত্ব বলতে বউকে মায়ের কথা শুনে চলতে বলা পর্যন্ত বোঝে। অথচ নিজে যে সারাজীবন মাকে কত জালাইল তার হিসাব নাই।আর মেয়েরা নিজে মা হওয়ার পর বুঝে মা কি জিনিস, তার আগে না।
মা দিবসের কথা উঠলে আমাদের মাথায় শুধু বয়স্ক ইমেজ আসে কেন আর ওল্ড হোমের কথাই আসে কেন? ছোট বাচ্চারা সবচেয়ে বেশি রাফ বিহেভ করে মায়ের সাথে, পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে তেমন সাহস পায় না। কেন জানেন, কারন সে ঘরের অন্যদের (বাবা, দাদা-দাদী, চাচা-ফুফি) তাকে তেমন গুরুত্ত দিতে দেখে না, সে দ্যেখে মা তাদের জন্য শুধু করেই যায় আর পান থেকে চুন খসলেই তাদের মুখ গোমড়া।তাই সেও এটাকে নরমাল মনে করে।ছোটদের বইয়ে মাকে ভালবাসা সম্পর্কিত রচনা গুলিতে শুধু মা কে নিয়ে ভারী ভারী কথাই লেখা থাকে, লেখা থাকে মা আমাদের অসুখ করলে মায়ের রাত জাগার কথা, আমাদের মায়ের জন্য কি করা উচিত তা তেমন একটা লেখা থাকে না।লেখা থাকে না পরিবারে মায়ের প্রতি অন্যায় হলে প্রতিবাদের কথা।মাকে ভালোবেসে মায়ের কাজে সাহায্য করার কথা লেখা থাকে না।মায়ের যাতে কস্ট না হয় এর জন্য নিজের কাজ নিজে করার কথা লেখা থাকে না। এক কথায় লেখা থাকে মাকে যেন কষ্ট না দেয়, এদিকে মেয়েদের কষ্টের রঙ গুলো কেমন তা খোজার চেষ্টা করার সময় কই আমাদের?
এভাবেই ভাল থাকে না মায়েরা। গানে, কবিতায় তাদের কষ্টের করুণ ৈশল্পিক বর্ণণা করি আমরা। তাদের ভাল রাখার উপায় খুঁজি কজন?

04/02/2015

মোস্তফা অনিক রাজ

গতকাল জানানো হলো- মুস্তফা কামাল
আইসিসি থেকে পদত্যাগ করেছেন।
বাংলাদেশের মিডিয়াকে উনি
জানিয়েছেন - "১৬ কোটি মানুষকে ছোট করে
আমি সভাপতি পদে থাকতে পারবো না।
যারা সংবিধান ও নিয়মনীতির তোয়াক্কা
করে না, তাদের সঙ্গে আমি কাজ করতে
পারি না"।
আর সাথে সাথে বাংলাদেশে, অনলাইনে শুরু
হয়ে গেল, " মুস্তফা কামাল বাংলার বাঘ" !
মুস্তফা কামাল বিশ্বে আমাদের বুক এই এত্ত
বড় করে দিছে!!
আবেগী আমরা ভুলে গিয়েছিলাম - শেয়ার
বাজারে লুটপাটের কারিগর লোটাস কামাল
পাকিস্তানে বাংলাদেশ দলকে পাঠানোর
জন্য কি তোড়জোর করেছিলেন। আমরা ভুলে
গিয়েছিলাম, তিনমোড়লের হাতে
বাংলাদেশের ক্রিকেট ধ্বংসের ভোটটা কে
তুলে দিয়েছিল। আমরা আবেগে ভুলে
গিয়েছিলাম, কোন লোক ইন্ডিয়ার কাছে
পরাজয়ের পর জোচ্চুরির প্রতিবাদে যখন তাঁর
পদত্যাগের গুঞ্জন ওঠে, তখন তিনি নিজেই
নাকচ করে বলেছিলেন - না, সব গুজব, আমি
পদত্যাগ করছিনা। এই লোকের কাছে "দেশের
প্রতি ভালোবাসায়" আইসিসির প্রেসিডেন্ট
পদ থেকে পদত্যাগ আশা করা যায়?
গতকাল আইসিসির প্রধান নির্বাহী ডেভ
রিচার্ডসন জানিয়েছেন, কামাল আইসিসিতে
ভারতের অযাচিত হস্তক্ষেপ ও
বাংলাদেশের স্বার্থ রক্ষা না হওয়ায়
পদত্যাগ করেননি, তিনি ব্যক্তিগত কারন
দেখিয়ে পদত্যাগ করেছেন। শুধু তাই না, তার
আগে তিনি সকল সদস্য দেশের কাছে ক্ষমাও
চেয়েছেন। এবং কারো প্রতি, কোন দেশের
প্রতি তার কোন অভিযোগ নেই।
তো, আবেগী চিলের পিছে ছোটা
বাঙ্গালীরা, আইসিস্যার সদস্যদেশগুলোর
কাছে মাফ চাওয়া - কারো প্রতি কোন
অভিযোগ না তোলা - দেশের মানুষের ইমোশন
নিয়ে নির্লজ্জ রাজনীতি করা মিথ্যাবাদী
এই দেশপ্রেমিকের জন্য একটি " ছেলুট" হবে
না??
মুস্তফা 'লোটাস' কামাল, আপনার ব্যক্তিগত
কারন হতে পারে " বিশ্বকাপ ট্রফি না দিতে
পারা"র ক্ষোভ। তাই বলে ১৬ কোটি মানুষের
আবেগটা নিয়ে মিথ্যাচার করে নিজেকে
দেশপ্রেমিক প্রমান করতে পারবেন না।
দেশের স্বার্থ আপনি কোথাও রক্ষা করতে
পারেন নি, বরং পদত্যাগ করছিলেনই যখন,
তখন পদত্যাগপত্রে শক্তভাষায় বলে আসতে
পারতেন - তোমরা আইসিসিকে ধ্বংস করছো।
আর লিখে এসেছেন উল্টো।
আপনি, আপনারা এক একজন প্রতারক।

12/10/2014

গল্পটি পড়ুন
চোখে পানি চলে আসবে **আমেরিকার
এক শহরে এক নামকরা Businessman ছিলো।
টাকা পয়সা, নামে, দামে,কোনো কিছুরই
তারঅভাব ছিলো না। কিন্তু তার
মডার্নসোসাইটিতে
মুখদেখাতে পারতোনা শুধুতার মায়ের
জন্য। কারন তার মা ছিলো অন্ধ। মায়ের
মুখে ছিলো আগুনে পোড়া দাগ। আরমাথায়
কোনো চুল ছিলো না । তাই
মডার্নসোসাইটিতে নিজের মান সম্মান
বজায় রাখারজন্য
মা কে বাসা থেকে বের করে দিলো।
বেচারি অন্ধ মা কেদে কেদে রাস্তায়
রাস্তায়ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন।
হঠাতএকটি গাড়িতে ধাক্কা খেয়ে বৃদ্ধা মা মারা গেল।
ছেলে শুনে কষ্ট পেলো না,
ভাবলো আপদবিদায়হয়েছে । কিছুদিন পর
কোনো Documentsখুজতে খুজতে মায়ের
ঘরে মায়েরলেখা একটা ডাইরি পেলো ।
ডাইরিতে লেখা ছিলো-
#০৫-১২-১৯৮০=আজ আমি সুন্দরি মিস
আমেরিকা এর Awardপেয়েছি।#০
২-০৫-১৯৮৩আজ আমার Pregnant এরAbortion
না করার জন্য
আমারস্বামী আমাকে Divorce দিয়েছে।
#০৭-০৩-১৯৮৫আজ আমার বাড়িতে আগুন
লেগেছিলো। আমি বাহিরে ছিলাম। আর
আমার কলিজারটুকরা ছেলে বাড়ির
ভিতরে ছিলো।নিজের জীবন
বাজি রেখে শুধু ছেলেরজীবনবাচাতে
গিয়ে আগুন লেগে আমার চুল
এবং মুখপুড়ে আমার সম্মস্ত সৌন্দর্য ছাই
হয়ে গেছে। তাতে আমারকোন দুঃখ নেই।
কিন্তু তবু আমার কলিজার টুকরা ছেলের
চোখদুটো আমি বাচাতে পারিনি ।
#০৭-৫-১৯৮৫আজ আমার নিজের চোখ
দুটো আমারছেলে কে দিতে যাচ্ছি । The
End of my Lifedairy ............ডাই
রিটি পড়ে ছেলে পাগলেরমতো কাদতে কাদতে দেওয়ালে মাথা আছড়াতে লাগলো ।
আমার আর বলার কিছু নেই। সমস্ত
পৃথিবীরমা জাতীর প্রতি রইলো আমার
সালাম। । (যারা মাকে ভালবাসেন
এবং মাকে কষ্টদিতে চাননা কেবলমাত্র
তারাই Like এবং কমেন্টকরবেন) আর
ভালো লাগলেadd দিতে পারেন accept
করব ইনশাআল্লাহ।

12/07/2014

ষাটের
দশকের বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় নায়ক
খলিলউল্লাহ খান খলিল আর নেই। রোববার
রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়
তিনি মারা গেছেন (ইন্না… রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল
৮০ বছর।
এর আগে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় খলিলকে শনিবার
রাতে অ্যাপোলো হাসপাতালের
আইসিইউতে ভর্র্তি করা হয়। বিভিন্ন
পরীক্ষা নিরীক্ষায় তার ব্রঙ্কিয়াল
অ্যাজমা ধরা পড়েছে। লিভার ও কিডনির সমস্যাতেও
ভুগছেন খলিল।
অভিনেতা খলিল অনেকদিন ধরেই ফুসফুস, লিভার ও
কিডনির সমস্যায় ভুগছেন। এর আগে ২০১১
সালে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় একই
হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন খলিল।
খলিল ৫৪ বছর ধরে প্রায় আটশ’ সিনেমাতে অভিনয়
করেছেন। টিভি নাটক দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করা খলিল
১৯৫৯ সালে জহির রায়হান পরিচালিত ‘সোনার কাজল’
সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্র যাত্রা শুরু করেন। তার
অভিনীত উল্লেখযোগ্য সিনেমা হল ‘প্রীত
না জানে রীত’, ‘সংগম’, ‘ভাওয়াল সন্ন্যাসী’,
‘ক্যায়সে কঁহু’, ‘জংলি ফুল’, ‘আগুন’, ‘পাগলা রাজা’, ‘মিন্টু
আমার নাম’, ‘ওয়াদা’ , ‘বিনি সুতার মালা’, ‘বউ কথা কও’,
‘কাজল’।
১৯৬৬ সালে এস এম পারভেজ পরিচালিত ‘বেগানা’
সিনেমায় প্রথমবারের মতো খলনায়কের
চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি। ১৯৬৫ সালে ‘ভাওয়াল
সন্ন্যাসী’ সিনেমার মাধ্যমে পরিচালক
হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন খলিল। তিনি ‘সিপাহী’
ও ‘এই ঘর এই সংসার’
নামে দুটি সিনেমা প্রযোজনা করেছেন।
খলিল বেশ ক’টি টিভি নাটকেও অভিনয় করেছেন।
শহীদুল্লাহ কায়সারের উপন্যাস
অবলম্বনে তৈরি ধারাবাহিক সংশপ্তকে মিয়ার
বেটা চরিত্রে অভিনয় করে দর্শক নন্দিত হন খলিল।
তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির
সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।

11/29/2014

সিংড়ায় স্বর্ণের ভূয়া পুতুলসহ আটক ১
এফএনএস (সাইফুল ইসলাম; সিংড়া, নাটোর) :
নাটোরের সিংড়া উপজেলার পিপলসন
গ্রামের আব্দুল মান্নান (৪৫) নামের এক
ভূয়া পুতুল ব্যবসায়ীকে আটক
করেছে সিংড়া থানা পুলিশ। শনিবার গভীর
রাতে গোপন সংবাদের
ভিত্তিতে এলাকাবাসীর সহযোগিতায়
দুর্গাপুর বাজার এলাকা থেকে তাকে আটক
করা হয়। আটককৃত পুতুল
ব্যবসায়ী ডাহিয়া ইউনিয়নের পিপলসন
গ্রামের মোবারক বাসুর ছেলে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,
সিংড়া থানার প্রত্যন্ত অঞ্চল পিপলসন ও
দূর্গাপুরে একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে স্বর্ণের
ভূয়া পুতুল ব্যবসা করে আসছে। শনিবার
রাতে পুতুল ব্যবসায় একাধিকবার আটক
ব্যবসায়ী আব্দুল মান্নানকে ভূয়া পুতুলসহ আটক
করে এলাকাবাসী। পরে রাত ২টায়
সিংড়া থানা পুলিশ উদ্ধার করে জেল
হাজতে প্রেরণ করে। পুতুল ব্যবসায়ী আব্দুল
মান্নান জানান, সে ছোট বেলা থেকেই এই
ব্যবসায় জড়িত। ৫ থেকে ৬বার জেলও
খেটেছেন। সে পিপলসন গ্রামের আমোদ
আলী ও লতিফের কাছ থেকে পুতুল
নিয়ে দালাল হিসেবে কাজ করেন। আরও
জানান, পুলিশকে মোটা অংকের
টাকা দিয়ে তারা এই
ব্যবসা পরিচালনা করেন। সিংড়া থানার
ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম
জানান, এবিষয়ে পুলিশ বাদী হয়ে থানায়
একটি মামলা দায়ের হরেছে।
সিংড়া মটর শ্রমিক সমিতির সালাম
সভাপতি সাত্তার সম্পাদক নির্বাচিত
এফএনএস (সাইফুল ইসলাম; সিংড়া, নাটোর) :
নাটোরের সিংড়া মটর শ্রমিক সমবায়
সমিতি লিঃ ত্রি-বার্ষিক সাধারণ
নির্বাচনে আব্দুস সালাম (চেয়ার মার্কা) ১৮২
ভোট পেয়ে সভাপতি ও আব্দুস সাত্তার (মাছ
মার্কা) ২৫৫ ভোট পেয়ে সাধারণ সম্পাদক
নির্বাচিত হয়েছেন।
সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্ব প্রার্থী শহিদুল
ইসলাম (ছাতা মার্কা) পেয়েছেন ১৫৮ ভোট ও
সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্ব
প্রার্থী রবিউল ইসলাম (আনারস মার্কা)
পেয়েছেন ৮৩ ভোট। অন্যান্য
পদে বিজয়ীরা হলেন, সহ-সভাপতি হাফিজুর
রহমান, সাংগঠনিক আহম্মদ আলী, লাইন
সম্পাদক আফগান আলী, কোষাধ্যক্ষ আলিফ
হোসেন। শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল
৪টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট গ্রহণ
শেষে রাত ৮টায় ফলাফল ঘোষণা করেন
প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা যুব উন্নয়ন
অফিসার রফিকুল ইসলাম। নির্বাচন
কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন
উপজেলা শ্রমিক দলের সভাপতি সাখাওয়াত
হোসেন সাখা ও আলহাজ্ব জালাল উদ্দিন
কারিগরী উচ্চ বিদ্যালয়ের
প্রতিষ্ঠাতা মাহমুব হোসেন।

Address

146 Hillside Av
New York, NY
11435

Telephone

+19344441863

Alerts

Be the first to know and let us send you an email when BB News 24 Hours posts news and promotions. Your email address will not be used for any other purpose, and you can unsubscribe at any time.

Contact The Business

Send a message to BB News 24 Hours:

Nearby media companies