MV24news

MV24news MV24 News' নিউ ইয়র্ক থেকে প্রচারিত বাংলা খবরের চ্যানেল
(1)

08/17/2020
Fi Amanillah

Fi Amanillah

আজ থেকে ১০০ বছর পর। ক্যালেন্ডারের পাতায় যখন ২১২০ সাল। আমাদের প্রায় প্রত্যেকের দেহ তখন মাটির নিচে। অস্তিত্ব তখন রূহের জগতে।

ইতিমধ্যে ফেলে যাওয়া আমাদের সুন্দর বাড়িটা হয়ত নেক্সট প্রজন্ম ভোগ করছে, পছন্দের কাপড়গুলো ব্যকডেটেড হয়েগেছে, শখের গাড়িটি হয়ত অন্য কেউ চালাচ্ছে।
আর আমায়? খুব কম জনই স্মরণে রেখেছে। কেউবা ভাবেও না। হাতে সময় নেই! যাদের জন্য সব করতে নিজের জীবন শেষ করে দিয়েছিলাম!

★আচ্ছা, ব্যস্ততার এই জীবনে আপ‌নি,
আপনার দাদার দাদাকে কত বার স্মরণ করেন?

★আপনার দাদীর দাদীর কথা কখনো কি আপনার মনে পড়ে?

পৃথিবীর বুকে আজকের এই বেঁচে থাকা, এতো হৈ চৈ, এতো মায়া কান্না-- এভা‌বেই চল‌ছে। গত হওয়া অসংখ্য প্রজন্মকে টপকে আমরা এই জীবন লাভ করেছি। তেমনিভাবে আগামীতে অসংখ্য প্রজন্মের ভিড়ে হারিয়ে যাবে এই জীবন।

যত প্রজন্ম আসছে আর যাচ্ছে,
দুনিয়াকে বিদায় জানাবার,
দায়িত্ব-ক্ষমতা অন্যের হাতে অর্পণ করবার,
কিংবা কারো ইচ্ছা অপূর্ণ রেখে যাবার পূর্বে—খুব কম জনই সময় পায় ফেলে যাওয়া জীবনটা একটু ফিরে দেখবার। বাস্তবতা হচ্ছে, এই জীবনটা আমাদের কল্পনার চেয়েও ছোট।

২১২০ সালে কবরে শুয়ে আমরা প্রায় সবাই এই বাস্তবতা উপলব্ধি করতে পারবো, সত্যিই দুনিয়াটা কতই না তুচ্ছ ছিল! একে ঘিরে দেখা স্বপ্নগুলো কতই না নগণ্য ছিল!

২১২০ সালে আমরা অ‌নে‌কেই চাইবো, 'ইশ যদি জীবনটা মহৎ কিছুতে উৎসর্গ করতে পারতাম! ইসলামের জন্যে! নেক আমল সংগ্রহের জন্য আরও কিছু করতে পারতাম! মৃত্যুর পরেও যে কাজগুলো আমাদের উপকার করে যেত, সেগুলোর পেছনে যদি আরও সময় উৎসর্গ করতে পারতাম!' ইস! শুধু আফসোস! ইস আর ইস!!

যারা‌ ইসলামের আ‌লোকে জীবন প‌রিচা‌লিত ক‌রেনি তারা চিৎকার করে কথাগু‌লো বলবে, কিন্তু কোনো ফল বয়ে আনবে না, এই হাহাকার:

"হায়! আমরা যদি আল্লাহ ও আল্লাহর রাসূল এর আনুগত্য করতাম।"
(সূরা আহযাব, আয়াত : ৬৬)

"হায়! আমিও যদি তাদের সঙ্গে থাকতাম, তা হলে বিরাট সফলতা লাভ করতে পারতাম।"
(সূরা আন-নিসা, আয়াত : ৭৩)

"হায়! আমি যদি ওকে বন্ধুরূপে গ্রহণ না করতাম।" (সূরাহ ফুরকান, আয়াত : ২৮)

"হায়! এমন যদি কোনো সুরত হতো― আমাদেরকে আবার দুনিয়াতে পাঠানো হতো, আমরা আমাদের প্রভুকে মিথ্যা প্রতিপন্ন না করতাম আর আমরা হতাম ঈমানদারদের শামিল।"
(সূরা আনআম, আয়াত : ২৭)

"..হে আমার রব! আমাকে আবার ফেরত পাঠান। যাতে আমি সৎকাজ করতে পারি যা আমি আগে করিনি।
(বরং জবাব মিলবে) "না, এটা হবার নয়। এটা তো তার একটি বাক্য মাত্র যা সে বলবেই । তাদের সামনে বার্‌যাখ থাকবে উত্থান দিন পর্যন্ত।"
[আল-মু'মিনুন, ৯৯-১০০]

মৃত‌্যুর পর অনেকেই আফসোসে নিজেদের হাত কামড়াতে থাকবে এই বলে,
"হায়! আমি যদি রাসূল এর পথ অবলম্বন করতাম।"
(সূরাহ ফুরকান, আয়াত : ২৭)

"হায়! আমার এ জীবনের জন্য আমি যদি কিছু অগ্রিম পাঠাতাম?”
[সূরা আল-ফাজর, ২৪]

⚫ মৃত্যুর ফেরেশতা আমাদেরকে নেককার হবার সময় দেবে না।
🔵 সে অপেক্ষা করবে না আমাদের জন্য..

তাই আসুন না, মৃত্যুর ফেরেশতা আসার আগেই আমরা সংশোধন হয়ে যাই! পাপে ভরা জীবনটা পাল্টে ফেলি!
হে আল্লাহ আমাদেরকে হেদায়াত দান করুন।,,,,,,

‘আল বিদা’ লিখে ঢাবি শিক্ষার্থীর আত্মহত্যাফেসবুকে ‘আল বিদা’ স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও ...
08/17/2020

‘আল বিদা’ লিখে ঢাবি শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

ফেসবুকে ‘আল বিদা’ স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ইমাম হোসাইন।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে নিজ বাড়িতে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে তিনি আত্মহত্যা করেন। এর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে রোববার দিবাগত রাত ২টা ১৭ মিনিটে ‘আল-বিদা’ লিখে স্ট্যাটাস দেন ওই শিক্ষার্থী।

ইমাম হোসাইনের বাড়ি বরিশাল জেলার উজিরপুর থানায়। তিনি বিশ্ববিদ্যালেয়ের কবি জসীম উদ্দীন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন।

কবি জসিম উদ্দীন হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. আব্দুর রশিদ বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। সে তার গ্রামের বাড়িতে আত্মহত্যা করেছে।

আত্মহত্যা করার আগের দিন আল বিদা লিখে সাথে একটি ভাঙ্গা লাভ ইমোজি দিয়ে একটি স্ট্যাটাস শেয়ার করেন ইমাম হোসাইন।

বন্ধুদের কাছ থেকে জানা যায়, তিনি দীর্ঘদিন ধরে ডিপ্রেশনে ছিলেন। প্রেমঘটিত কারণে সে আত্মহত্যা করেছে বলে ধারণা সবার।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী বলেন, আমরা বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হয়েছি। আমরা রিলায়েবল সোর্স থেকে তথ্য পাওয়ার চেষ্টা করছি। সত্যি যদি এটি হয়ে থাকে তাহলে একটি মর্মান্তিক এবং সাংঘাতিক বেদনাদায়ক।

সৌদি আরবে নারীর ক্ষমতায়নের অংশ হিসেবে মক্কা ও মদিনার পবিত্র দুই মসজিদের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ১০ নারীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে...
08/17/2020

সৌদি আরবে নারীর ক্ষমতায়নের অংশ হিসেবে মক্কা ও মদিনার পবিত্র দুই মসজিদের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ১০ নারীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। খবর আল আরাবিয়া।

পবিত্র দুই মসজিদ সংক্রান্ত এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নিয়োগপ্রাপ্ত নারীরা প্রশাসনিক থেকে কারিগরী বিভিন্ন বিভাগে দায়িত্ব পালন করবেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, উচ্চ যোগ্যতা সম্পন্ন সক্ষম নারীদের ক্ষমতায়িত করাই এ পদক্ষেপের লক্ষ্য।

সৌদি সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে, এর আগে ২০১৮ সালে এই দুই পবিত্র মসজিদে নেতৃত্ব পর্যায়ে ৪১ জন নারীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল।

যুবরাজ সালমান তার ‘ভিশন ২০৩০’ এর অংশ হিসেবে নারীর কর্মসংস্থান বাড়ানোর চেষ্টা করছেন। এর লক্ষ্য তেলের ওপর নির্ভরশীলতা কমিয়ে অর্থনীতিতে বৈচিত্র আনা।

এর আগেও তিনি নারীর গাড়ি চালানোর অনুমতিসহ বেশ কিছু উদারনৈতিক উদ্যোগ নিয়েছিলেন।

আজকের জোকস
08/15/2020

আজকের জোকস

আমেরিকা কাঁপাচ্ছেন লাদেনের ভাতিজি! একসময় আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ঘুম হারাম করে রেখেছিলেন ওসামা বিন লাদেন। আল কায়েদার এই ন...
08/15/2020

আমেরিকা কাঁপাচ্ছেন লাদেনের ভাতিজি!

একসময় আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের ঘুম হারাম করে রেখেছিলেন ওসামা বিন লাদেন। আল কায়েদার এই নেতার নাম শুনলেই ঘুম হারাম হয়ে যেত মার্কিন প্রশাসনের। দীর্ঘ দুই দশক ধরে সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াইয়ের পর পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদ একটি দুর্গে সামরিক অভিযান পরিচালনা করে তাকে হত্যা করে মার্কিন নেভী সিল।

এবার সেই যুক্তরাষ্ট্র কাপাচ্ছেন তারই ভাতিজি ওয়াফা দুফোর বিন লাদেন। না চাচার মতো অস্ত্র হাতে নয় বরং তার লাস্যময়ী ভঙ্গী ও রুপের ঝলকে।

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ মডেলদের একজন ওয়াফা দুফোর। সে একজন গায়িকাও। একের পর এক কাঁপিয়ে বেড়াচ্ছেন মার্কিন গ্ল্যামার জগত।

সম্প্রতি একটি মার্কিন ম্যাগাজিনে তার পারিবারিক পরিচয় প্রকাশ হলে তিনি তা স্বীকারও করে নেন।
ওয়াফা বলেন, আমার এই পরিচয়ের জন্য আমি মোটেও বিব্রত নই। যার যার কর্মফল সে ভোগ করবে। এতে অন্য কেউ দায় নেয়ার কিছুই নেই

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ...
08/15/2020

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার (১৫ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৫টার দিকে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি।

চট্টগ্রামে বিয়ের নামে কনের পিতাকে জীবন্ত লাশ বানানো হচ্ছে!পৃথিবীর অন্য জায়গা থেকে চট্টগ্রামের বিয়ের সংস্কৃতি হচ্ছে সম্পূ...
08/13/2020

চট্টগ্রামে বিয়ের নামে কনের পিতাকে জীবন্ত লাশ বানানো হচ্ছে!

পৃথিবীর অন্য জায়গা থেকে চট্টগ্রামের বিয়ের সংস্কৃতি হচ্ছে সম্পূর্ণ আলাদা। কারণ চট্টগ্রামের মানুষ যৌতুক ছাড়া বিয়ে করে না। চট্টগ্রামের মানুষ যৌতুককে বৈধতা দিয়ে আসছে যুগ যুগ ধরে। এখানে যৌতুক নেওয়াটা একধরণের ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। চট্টগ্রামের মানুষ বিয়ের সময় টাকা নেওয়াকে যৌতুক মনে করে আর বাকি গুলোকে তাদের অধিকার মনে করে।
নিচে বিভিন্ন অপসংস্কৃতি উল্লেখ করা হলো:

#খাবার_পর্ব:
চট্টগ্রামে বিয়ের সময় বর পক্ষের ৪০০/৭০০/১০০০ মানুষকে খাওয়াতে হয়। খাবার ম্যানুতে থাকে চিংড়ি,গরুর মাংস,খাসির মাংস,রূপচাঁদা মাছ,ডিম,পোলাও ভাত,মুরগি,চিকেন টিক্কা,পায়েস,মিনারেল ওয়াটার,কুক ও বিভিন্ন ধরনের সবজিসহ আরো অনেক কিছু। এসব আইটেমে কোন কিছু কমবেশি হলে বা কোন আইটেমে সামান্য লবণ বেশি হলে শুরু হয়ে যাবে কনে পক্ষের সাথে বর পক্ষের তর্কাতর্কি । কারনণ বর পক্ষ এগুলো তদারকির জন্য একজন ব্যারিষ্টার রাখে যার কাজ হল কনে পক্ষের দোষ খুঁজে বের করা।

বিয়ের পূর্বে যদি আকদ হয় তখন কিন্তু প্রায় ২০০/৩০০ জন মানুষের খাবারের আয়োজন করতে হয়। বিয়ের পর শুরু হয় বিভিন্ন পর্বের দাওয়াতনামা, নতুন জামাই বিয়ের পর শ্বশুর বাড়িতে যাবে তবে একা যেতে পারবে না, ৮০/১০০/১৫০ জনের বিশাল বহর নিয়ে শ্বশুর বাড়িতে যেতে হবে, না হয় মহাভারত অশুদ্ধ হয়ে যাবে! নতুন জামাইয়ের পর্ব শেষ হলে কিছুদিন পর শুরু হবে শ্বশুর ও শ্বাশুড়ি পর্ব কারণ নতুন জামায়ের সাথে শ্বাশুড়ি আসতে পারবে না, এটা তথাকথিত ''বুড়া/বুড়ির'' মানা (নিষেধ)।

শ্বাশুড়িও তাদের বিশাল বহর নিয়ে এসে খেয়ে যাবে এবং কিছু খাবার সাথে নিয়ে যাবে। এখানে কিন্তু শেষ না, বিয়ের সময় বরের ভাই-বোনের স্বামী বা অন্য কেউ বিদেশে ছিল যার কারণে সে আসতে পারে নি, সে যখন দেশে আসবে তখন তার সাথেও ১০-৩০ জন যেতে হবে।

#মৌসুমি_ফল এরপর শুরু হবে চট্টগ্রামের ভাষায় ''বছরি জিনিস'' দেওয়ার পালা। অর্থাৎ আমের মৌসুম আসলে দিতে হয় ৫০-৬০ কেজি আম, আনারস, কাঠালসহ আরো বাহারি রকমের ফল ফল-ফলাদি।

#রমজানের সময় দিতে হয় মেয়ের শ্বশুর বাড়ির চৌদ্দ গোষ্টিকে ইফতারি'সহ আরো হরেক রকম আইটেম।

#ঈদের সময় ছেলের পরিবার, বোনের স্বামীসহ সবাইকে শপিং করে দিতে হয়। তবে ঈদের সময় ছেলে পক্ষের সবাই আসবে এটা স্বাভাবিক বিষয় এবং এর ফলে দুই পরিবারের মাঝে সম্পর্ক আরো ঘনিষ্ঠ হয়।

#কুরবানের_ঈদে দিতে হবে গরু, গরু রান্না করার জন্য তৈল, মসাল্লা, পিয়াজ ইত্যাদি, মহরম আসলে দিতে হবে ১৫/১৬টি মুরগি ও ৮/১০ কেজি গরুর মাংস রান্না করে।
শীতকাল আসলে দিতে হবে হরেকরকম শীতেরপিটা, তালপিটা ইত্যাদি। এছাড়া বাৎসরিক উৎসবের আইটেম তো আছেই।

#ফার্নিচার ও বিভিন্ন জিনিস চট্টগ্রামে বিয়ের পূর্বেই বর পক্ষের বাড়িতে পৌঁছে দিতে হয়। ফার্নিচারের মধ্যে থাকে বিভিন্ন ধরনের উন্নতমানের জিনিসপত্র তারমধ্যে ফ্রিজ, টিভি, গ্যাসের চুলা এগুলোও বাধ্যতামূলক দিতে হয়। এছাড়া কনে পক্ষের অতিথিদের দেয়া উপহারের অধিকাংশ জিনিসও বর পক্ষকে দিয়ে দিতে হয়।

#বাচ্চা_জন্ম
বিয়ের পর যখন কনের বাচ্চা হয় তখন বাচ্চার দোলনা,সাবান,পাউডার,লোশন ও বিভিন্ন ধরনের কাপড়সহ আরো অনেক কিছু কনের পক্ষ থেকে দিতে হয়।

যুগের সাথে তাল মিলিয়ে বদলে গেছে বিশ্ব। এমনকি আমাদের দেশও অনেক বদলে গেছে। কিন্তু বদলাতে পারি নাই আমরা চট্টগ্রামের মানুষ গুলো।

আসুন ধর্মীয় মূল্যবোধ জাগিয়ে তুলি,
অপসংস্কৃতিকে না বলি।

অবশ্যই শোকরান করোনা কারণ করোনা আসার পর থেকে এই সংস্কৃতি তেমন দেখতে হয় নি।

এ প্রথমলাকসাম জেনারেল হসপিটালে এক মা ৫ সন্তানের জন্ম দিলেন৩ ছেলে ২ মেয়ের
08/12/2020

এ প্রথম
লাকসাম জেনারেল হসপিটালে এক মা ৫ সন্তানের জন্ম দিলেন
৩ ছেলে ২ মেয়ের

উত্তরাধিকার সম্পত্তিতে পুত্র ও কন্যার সমান অধিকার ঘোষণা ভারতের
08/12/2020

উত্তরাধিকার সম্পত্তিতে পুত্র ও কন্যার সমান অধিকার ঘোষণা ভারতের

বিশ্বের প্রথম করোনার ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়া। এমনকি এই ভ্যাকসিন পুতিনের মেয়ের শরীরে পুশ করা হয়েছে। পুতিন জানিয়ে...
08/11/2020

বিশ্বের প্রথম করোনার ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়া। এমনকি এই ভ্যাকসিন পুতিনের মেয়ের শরীরে পুশ করা হয়েছে। পুতিন জানিয়েছে সে ভালো আছে।

08/11/2020
সাংবাদিক ইলিয়াস হোসেনের হুং কারে দৌড়ে পালালো আওয়ামীলীগের কিছু সন্ত্রা' সী || নিই ইয়র্ক

নিই ইয়র্কে সাংবাদিক ইলিয়াসের উপর আত্রমনের চেষ্টা করে আওযামীলীগের কিছু কর্মী কিন্তু ইলিয়াসের হুংকারে দৌড়ে পালায়।

https://youtu.be/p6PEezYUZPM

সাংবাদিক ইলিয়াস হোসেনের হুং কারে দৌড়ে পালালো আওয়ামীলীগের কিছু সন্ত্রা' সী || নিই ইয়র্ক

একটি_প্রাপ্তি_সংবাদ১৯-২০ বছর (আনুমানিক) বয়সের একটি তরুনী মেয়ে পাওয়া গেছে মেয়েটির গায়ের রং ফর্সা সে কোনো কথা বলতে পারছেনা...
08/11/2020

একটি_প্রাপ্তি_সংবাদ

১৯-২০ বছর (আনুমানিক) বয়সের একটি তরুনী মেয়ে পাওয়া গেছে মেয়েটির গায়ের রং ফর্সা সে কোনো কথা বলতে পারছেনা। সম্ভব্য মেয়েটিকে চেতনানাশক দ্রব্য প্রয়োগ করে কে বা কাহারা নিউ মার্কেট বায়তুল আমান জামে মসজিদের সামনে রেখে যায় । পরবর্তিতে স্থানীয় লোক জনের সহায়তায় নিউ মার্কেট সংলগ্ন নীলক্ষেত থানায় যোগাযোগ করলে পুলিশ এসে তরুনীকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। যদি কেহ এই তরুনীকে চিনতে পারেন অনুগ্রহ করে নিউ মার্কেট সংলগ্ন নীলক্ষেত থানায় যোগাযোগ করার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা যাচ্ছে ।

08/10/2020
08/10/2020
ভাল বুদ্ধি!
08/10/2020

ভাল বুদ্ধি!

08/09/2020
বাংলাদেশের বিজয় মানে ভারতের বিজয় - পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ভিডিও দেখতে ছবিতে ক্লিক করুন

‘ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের মধুর সম্পর্ক, রক্তের সম্পর্ক রয়েছে। বাংলাদেশের বিজয় মানে ভারতের বিজয়, বাংলাদেশের উ.....

08/09/2020

আমাদের বিজয় মানে ভারতের বিজয়, ভারতের বিজয় মানে আমাদের: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

জেনে_নিন_১০_টি_শারীরিক_কৌশল১) অনেক সময় গলার ভেতরে এমনজায়গায় হঠাৎ চুলকানী শুরু হয় যে, কিকরবেন দিশেহারা হয়ে পড়েন। ওইজায়গাট...
08/09/2020

জেনে_নিন_১০_টি_শারীরিক_কৌশল

১) অনেক সময় গলার ভেতরে এমন
জায়গায় হঠাৎ চুলকানী শুরু হয় যে, কি
করবেন দিশেহারা হয়ে পড়েন। ওই
জায়গাটি চুলকে নেওয়ার কোন উপায়ও
থাকে না। কিছু সময় কানে টান দিয়ে
ধরে রাখুন দেখবেন চুলাকনী উধাও।

🎆
২) অনেক শব্দের মধ্যে বা ফোনে কথা
স্পষ্ট শুনতে পারছেন না? কথা শোনার
জন্য ডান কান ব্যবহার করুন। দ্রুত কথা
শোনার জন্য ডান কান খুব ভাল কাজ
করে এবং গান শোনার জন্য বাম কাজ
উত্তম।
🎆
৩) বড় কাজটি সারবেন, কিন্তু আশে
পাশে টয়লেট নেই? আপনার ভালবাসার
মানুষের কথা ভাবুন। মস্তিষ্ক আপনাকে
চাপ ধরে রাখতে সাহায্য করবে।
🎆
৪) পরের বার ডাক্তার যখন আপনার
শরীরে সুঁই ফুটাবে তখন একটি কাশি
দিন। ব্যথা কম লাগবে।
🎆
৫) বন্ধ নাক পরিষ্কার বা সাইনাসের
চাপ থেকে মুক্তি পেতে মুখের
ভেতরের তালুতে জিহ্বা চেপে ধরুন।
এরপর দুই ভ্রুর মাঝখানে ২০ সেকেন্ড
চেপে ধরুন। এভাবে কয়েক বার করুন,
দেখুন কি হয়!
🎆
৬) রাতে অনেক খেয়ে ফেলেছেন
এবং খাবার গলা দিয়ে উঠে যাচ্ছে।
কিন্তু ঘুমাতেও হবে। বাম কাত হয়ে
শুয়ে পড়ুন। অস্বস্তি দূর হবে।
🎆
৭) কোন কিছুর ভয়ে বিচলিত? বুক ধক ধক
করছে? বুড়ো আঙ্গুল নাড়তে থাকুন এবং
নাক দিয়ে পেট ভারে সজোরে শ্বাস
নিন এবং মুখ দিয়ে ছাড়ুন। স্বাভাবিক
হয়ে যাবেন।
🎆
৮) দাঁত ব্যথা? এক টুকরো বরফ হাতের
বৃদ্ধাঙ্গুল এবং তর্জনীর মাঝামাঝি
জায়গার উপর তালুতে ঘষুন। দেখুনতো
ব্যথা কমলো কিনা!
🎆
৯) কোন কারণে চোখের সামনে পুরো
পৃথিবী ঘুরছে? কোন শক্ত জায়গা বা
জিনিসে কান সহ মাথা চেপে ধরুন।
পৃথিবী ঘোরা বন্ধ করে দেবে।
🎆
১০) নাক ফেটে রক্ত পড়ছে? একটুখানি
তুলা নাকের নিচ বরাবর যে দাঁত আছে
তার মাড়ির পেছনে বসান, এবার
জোরে ওখানে তুলাটি চেপে ধরুন।
রক্তপাত বন্ধ!
🎆

.....নিজে জানুন অন্যকে জানান.......

''পুলিশের গুলিতে যদি একজন আর্মি মেজর নিহত হতে পারে, সেখানে সিফাত পুলিশের বিপক্ষে একজন রাজসাক্ষী। তাহলে পুলিশের হেফাজতে থ...
08/09/2020

''পুলিশের গুলিতে যদি একজন আর্মি মেজর নিহত হতে পারে, সেখানে সিফাত পুলিশের বিপক্ষে একজন রাজসাক্ষী। তাহলে পুলিশের হেফাজতে থেকে সে কী বিপন্ন নয়? অবশ্যই সে বিপন্ন।''

08/08/2020
08/08/2020

সিফাতের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধনে পুলিশের লাঠিচার্জ

08/08/2020

✍সরকারের বিরুদ্ধে কথা বললে
আমরা #বিএনপি।
✍ইন্ডিয়া বিরুদ্ধে কথা বললে
আমরা #পাকিস্তানি।
✍ধর্মীয় বিষয় কথা বললে
#জামাত_শিবির।
✍দেশের সিস্টেম বিরুদ্ধে কথা বললে
আমরা #রাজাকার।
✍প্রশাসনের বিরুদ্ধে কথা বললে
আমরা #জঙ্গি।
✍ফেজবুকে সত্যবাদী পোস্ট করলে
আমরা #গুজবরটনাকারী ।
✍আর সরকারে পক্ষে তেলমারতে পারলে
আমরা #দেশ_প্রেমিক।
✍এটাই আমাদের বর্তমান 🇧🇩 বাংলাদেশ 🇧🇩✍ পারলে
আমরা #দেশ_প্রেমিক।

অনেক চেষ্টার পর ও ‘নোবেল ম্যান’ নামের ইউটিউব চ্যানেলটি ব্যান করতে পারলো না তথাকথিত সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ‘ওএ...
08/08/2020

অনেক চেষ্টার পর ও ‘নোবেল ম্যান’ নামের ইউটিউব চ্যানেলটি ব্যান করতে পারলো না তথাকথিত সাইবার নিরাপত্তা বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ‘ওএলডি ম্যাক্সট্যান’।
‘ওএলডি ম্যাক্সট্যান’ এর রিপোর্টের ভিত্তিতে নোবলের ইউটিউব চ্যানেলটি বন্ধ করে ইউটিউব কর্তৃপক্ষ।
কিন্তু কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই নোবেল টিম তা পুনরুদ্ধার করে।
চ্যানেলটিতে ১৪ লাখের বেশি সাবস্ক্রাইবার আছে।

লেবাননের জন্য সাহায্য চেয়ে মিয়া খলিফার আবেদন, বিস্ফোরণের দায় দিলেন হিজবুল্লাহকে
08/07/2020

লেবাননের জন্য সাহায্য চেয়ে মিয়া খলিফার আবেদন, বিস্ফোরণের দায় দিলেন হিজবুল্লাহকে

Photos from MV24news's post
08/07/2020

Photos from MV24news's post

সানাই মাহাবুব করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে
08/06/2020

সানাই মাহাবুব করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে

Photos from MV24news's post
08/05/2020

Photos from MV24news's post

স্যালুট বস ❤✌ছবির বৃদ্ধ লোকটি নড়াইলের একটি মসজিদের মুয়াজ্জিন।নড়াইলে একটি অনুষ্ঠানে বৃদ্ধ মুয়াজ্জিন স্বেচ্ছাসেবকদের বলেন,...
08/04/2020

স্যালুট বস ❤✌

ছবির বৃদ্ধ লোকটি নড়াইলের একটি মসজিদের মুয়াজ্জিন।

নড়াইলে একটি অনুষ্ঠানে বৃদ্ধ মুয়াজ্জিন স্বেচ্ছাসেবকদের বলেন, "আমি কোনোদিন কোনো এমপি'র সাথে কথা বলিনি, আমাকে এমপি'র সাথে কথা বলার একটু সুযোগ করে দেও। "

এই খবর এমপি মাশরাফির কানে গেলে, এমপি সাহেব নিজ আসন থেকে উঠে বৃদ্ধের কাছে এসে ওনার সাথে কথা বলেন এবং ওনার পরিবারের খোঁজ-খবর নেন।

তিনি দেশ সেরা ক্রিকেটার, তিনি একটি সংসদীয় আসনের নির্বাচিত এমপি কিন্তু একজন মুুরুব্বির কাছে তিনি তার সন্তানের মতো।

ক্যাপ্টেন #মাশরাফি তুমি অনন্য... ♥
তুমি অসাধারণ, তুমিই সেরা।

তুমিই বাংলাদেশ, তুমিই আমাদের জাস্টিন ট্রুডো ♥

সদ্য খুন হওয়া পুত্রের সমাধিতে ৬৫ বছর বয়স্ক মায়ের বার্তা- মেজর (অব) রাশেদ খান সিনহার শেষকৃত্যে  সামরিক বাহিনীর কবরস্থানে ...
08/04/2020

সদ্য খুন হওয়া পুত্রের সমাধিতে ৬৫ বছর বয়স্ক মায়ের বার্তা-

মেজর (অব) রাশেদ খান সিনহার শেষকৃত্যে সামরিক বাহিনীর কবরস্থানে তাঁর মা নাসিমা আখতারের বলা কথাগুলো – বাংলায় অনুবাদ করলাম বুকে পাথর চেপে-

আমার ছেলে বাস্তবের একজন নায়ক ছিল, সে সাহসের সাথে মৃত্যুকে বরণ করেছে, সে কোন কাপুরুষ ছিলো না, সে একজন জাতীয় বীর ছিল। সে ছিল একজন সত্যিকারের প্রেরণাদাতা, আমাদের সকল আত্মীয়, সব বন্ধু তাঁর কাছ থেকে জীবনের উৎসাহ পেতো। সে সবসময়ই হাস্যজ্জল এক চমৎকার মানুষ ছিল যে সবসময়ই মানুষের মুখে হাসি ফোঁটাতে এবং অন্যদের সুখী করতে চেষ্টা চালাতো। অপরের সুখের জন্য জীবন উৎসর্গ করাই ছিল তাঁর অন্যতম ব্রত।

আমাকে বিন্দুমাত্র জিজ্ঞাসা না করেও আমার সকলে আরামের দিকে তাঁর পুঙ্খানুপুঙ্খ নজর ছিলো। চাকরির কারণে তাঁর পোস্টিং যেখানেই হোক না কেন আমি যাতে ভালো থাকি, আরামে থাকি সে নিয়ে তাঁর চেষ্টার অন্ত ছিল না। বাড়ির প্রতিটা কাজে আমাকে সাহায্য করতো। সবকাজ সবসময়ই নিজে নিজেই করে আমাকে সবসময় চমকে দেওয়ার কাজটা সে খুব ভালো পারতো। আমাদের বাড়ীর প্রতিটি কোণা, প্রতিটি দেয়াল সে নিজের হাতে সাজিয়েছিল।

তাঁর বাবার মৃত্যুর সময় আমাদের বাড়িটা দুইতলা ছিল। কিন্তু যখন সে এস এস এফে পোস্টিং পেল ( তাঁর ১৬ বছরের সামরিক জীবনে যে একটি মাত্র সময়েই সে ঢাকায় পোস্টিং পেয়েছিল) , তখনই যে হাউজ বিল্ডিং থেকে ঋণ নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করে আমাদের বাড়িটা চারতলা করে। এই নির্মাণ কাজের তদারকি করার সে অধিকাংশ সময়ই সে রাতে আসতো যেহেতু এস এস এফের দায়িত্বে ব্যস্ততা অত্যন্ত বেশি থাকায় এছাড়া সময় পেত না।

আমার ছেলেকে তাঁর কোন ইচ্ছের বিরুদ্ধে আমি আটকে রাখি নাই, কোন সময়েই না। যা যা সে করতে চেয়েছে আমি স্বাধীনতা দিয়েছি। অবশ্য সে আমাকে সবসময়ই বুঝিয়ে ফেলতে সক্ষম হতো কোন না কোন ভাবে। আমাকে না বুঝিয়ে সে একটা কাজও করে নি। সে সবসময়ই আমার অনুমতি নিয়ে নিত সেই কাজগুলোর জন্য যেগুলো তাকে সুখী করতে পারে। যাতে তাঁর ভালো লাগে, সেই কাজগুলোতে আমার সবসময়ই সায় ছিল।

সে ছিল একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। দেশকে যে নিজের চেয়ে বেশী ভালোবাসতো। আমার ছেলে ছিল দৃঢ় ব্যক্তিত্বের অধিকারী। সে সমুদ্র ভালোবাসতো, সে সৈকতে বই পড়তে পড়তে সময় কাটাতে চাইতো। শৈশব থেকেই সে অ্যাডভেঞ্চারের ভক্ত ছিল।

সারা বিশ্ব ভ্রমণের এক প্রগাঢ় সাধ ছিলো তাঁর, যে জন্য বাংলাদেশ সামরিক বাহিনী থেকে সে স্বেচ্ছায় অবসর নিয়েছিল। আমি তাকে নিষেধ করি নাই। তাঁর হিমালয়ে যাবার স্বপ্ন ছিল, ছেলেটা হাইকিং পছন্দ করতো, জাপানে একটা সাইকেল ট্যুরে যেতে চেয়েছিলো। চাকুরি থেকে অবসরের পরপরই সে তাঁর এই স্বপ্নগুলো ছোঁয়ার জন্য প্রস্তত হচ্ছিল।

এর মাঝে করোনা মহামারি চলে এলো । দেশ ব্যপী লকডাউন শুরু হবার কদিন পরে সে জানালো যে তাকে নিয়মিতই বাহিরে যাতায়াত করতে হয়, এবং আমি একজন বয়স্ক মানুষ , তাই তাঁর এই চলাফেরা আমার জন্য বেশী ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যাচ্ছে। এরপর সে বলল যে রাজশাহী যাবে কিছুদিনের জন্য, সেখানে তাঁর এক বন্ধুর মা
( যিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ছিলেন) এক বিশাল লাইব্রেরী করেছেন। ছোট থেকেই সে প্রচুর বই পড়তো। তাই তাকে আমি যেখানে যেতে দিলাম, বললাম প্রচুর পড়াশোনা করতে। সে রাজশাহীতে প্রায় চার মাস ছিল এবং আস্তে আস্তে নিজেকে বিশ্ব ভ্রমণের জন্য প্রস্তত করছিল।

ছেলেটার তীব্র ভ্রমণের নেশা ছিল। যখন সে জাতিসংঘে শান্তিরক্ষা মিশনে ছিল, ছুটিতে বাংলাদেশে আসতো না। তার বদলে দুই মাসের ছুটিতে ইউরোপ যেয়ে গাড়ী করে হাজার হাজার মাইল ড্রাইভ করে নিজে নিজে ঘুরেছিল। এটা আমার খুব ভালো লেগেছিল কারণ ছেলেটা অন্তত নিজের একটা স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছিল। আমার পূর্ণ সমর্থন ছিল এই সিদ্ধান্তের প্রতি।

চাকরি থেকে অবসর নেবার পর প্রতি রাতে সে আমার মশারি টাঙ্গিয়ে দিত, আমার সকল ঔষধপত্র নিজে নিজেই সাজিয়ে গুছিয়ে রাখতো, যাতে আমার বুঝতে বিন্দুমাত্র সমস্যা না হয়। যখনই বাড়ির বাহিরে যেত, সবসময়ই নিজের চাবি নিয়ে যেত, যাতে আমাকে বিরক্ত না করতে হয় দরজা খোলার জন্য।

রাজশাহী থেকে ফিরে মাত্র ক’দিন আমার সাথে ছিল। এবং তারপর কক্সবাজারে এক মাসের জন্য থেকে একটা তথ্যচিত্র নির্মাণের পরিকল্পনা জানালো। আমি সম্মতি দিয়েছিলাম। সে বিয়ে করে নি, আর আমিও তাঁর স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করতে চাই নি। ২৬ জুলাই ছিল ওর জন্মদিন। অনলাইন সার্ভিসের মাধ্যমে সে যে রিসোর্টে ছিল সেখানে এক বাক্স চকলেট পাঠিয়ে ছিলাম। কোরবানির ঈদের সময় ছেলেটা আমাকে কক্সবাজারে যেয়ে ওর সাথে ঈদ করতে বলছিল, কারণ তথ্যচিত্রের শুটিঙয়ে নাকি আরও কয়েকদিন সময়ের দরকার ছিলো। অসুস্থতার কারণে আমার যাওয়া হয়ে উঠে নি।

৩১ জুলাই রাত ১১টায় আমি ছেলেকে ফোন দিয়েছিলাম, কিন্তু ফোন কেউ ধরে নাই। অবশেষে পুলিশ আমাকে ফোন করে আদনানের
( মেজর সিনহার ডাকনাম) মৃত্যুসংবাদ দেয়।

আমার ছেলে একজন শহীদ। একজন বীরের রক্ত এবং মায়ের অশ্রু বৃথা যেতে পারে না। আশা করি পরম করুণাময় তাকে জান্নাতে আশ্রয় দিবেন।

©Onu Tareq

Address

New York, NY
11435

Alerts

Be the first to know and let us send you an email when MV24news posts news and promotions. Your email address will not be used for any other purpose, and you can unsubscribe at any time.

Contact The Business

Send a message to MV24news:

Videos

Nearby media companies