Clicky

T u h i n a t i o n.com

T u h i n a t i o n.com Youtube Video Creator Video Creator

Operating as usual

কঠিন বাস্তবতা, কি করুন দৃশ্য, নিঁখোজ বাবাকে খুঁজতে নিজের ডিএনএ পরীক্ষা দিতে এসেছে এই অবুঝ শিশু ।এই বাস্তবতার মুখোমুখি আর...
06/06/2022

কঠিন বাস্তবতা, কি করুন দৃশ্য, নিঁখোজ বাবাকে খুঁজতে নিজের ডিএনএ পরীক্ষা দিতে এসেছে এই অবুঝ শিশু ।এই বাস্তবতার মুখোমুখি আর কাউকে করিও না ইয়া আল্লাহ !

ফাইজাকে নিয়ে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ কেন্দ্রে মামা।চট্রগ্রামে কইন্টেনার ডিপোতে অগ্নিকান্ডের পর নিখোঁজ সোবহানের পরিচয় জানতে নমুনা পরীক্ষার জন্য তাঁর এই সাত মাসের শিশুকন্যাকে নিয়ে এসেছে পরিবার।আল্লাহ সবরে জামিল করার তাওফিক দাও শোকাহত পরিবারে...

সরকারের পরিকল্পনাতে ভুল আছে.. পদ্মা সেতু থেকে আরো রাজস্ব আয়ের সু্যোগঃ-সরকার চাইলে পদ্মা সেতু থেকে আরো কিছু রাজস্ব আয় কর...
06/01/2022

সরকারের পরিকল্পনাতে ভুল আছে..
পদ্মা সেতু থেকে আরো রাজস্ব আয়ের সু্যোগঃ-

সরকার চাইলে পদ্মা সেতু থেকে আরো কিছু রাজস্ব আয় করতে পারে,

১. দূর থেকে দেখলে জনপ্রতি ৫০ টাকা।

২.কাছে থেকে দেখলে ৭০ টাকা,

৩. স্বপ্নে দেখলে ৮০ টাকা!

৪. ইউটিউবে দেখলে ৩০ টাকা।

৫. ছবি তুললে প্রতি ছবি ১৫ টাকা।

৬. কোন নৌযানে করে ভ্রমনের উদ্দেশ্যে কাছাকাছি গেলে ১০০ টাকা।

৭. ভ্রমনের উদ্দেশ্যে নীচ দিয়ে চক্কর মারলে ট্রলারপ্রতি
২০০ টাকা।

৮. হেলিকপ্টারে বসে দেখলে জনপ্রতি ১০,০০০ টাকা;

৯. বিমান থেকে দেখলে যাত্রী প্রতি ৮,০০০ টাকা।

১০. ড্রোন দিয়ে ছবি তুললে বা ভিডিও করলে ৭,০০০ টাকা।

১১. পেছনে সেতু দেখা যায় এমন জায়গায় বাংলা নাটক বা সিনেমার শুটিং করলে প্রতিদিন ৫,০০০ টাকা, অনন্ত জলিল ও জায়েদ খানের ছবি হলে ডাবল।

১২. কাউকে পদ্মা সেতুর কসম দিলে, কসম প্রতি ১,০০০ টাকা।
সেতুর ৩ কিলোমিটারের মধ্যেঃ
১৩. পিকনিক করলে ১০,০০০ টাকা।
১৪. বিয়ের অনুষ্ঠান হলে ২০,০০০ টাকা।
১৫. ম্যারেজ ডে করলে ৫,০০০ টাকা।
১৬. প্রেম অফার করলে ৩,০০০ টাকা।
১৭. মুসলমানীর জন্য বিশেষ ছাড় ১,০০০ টাকা🤧

©

তিনি লন্ডন, ইংল্যান্ড ও ইউ কে থেকে আলাদা আলাদা ডিগ্রীলাভ করেছেন মাশাল্লা এতো বড় ডাক্তার সাধারণ মানুষকে ঠকানোর কত  অপচেষ্...
05/29/2022

তিনি লন্ডন, ইংল্যান্ড ও ইউ কে থেকে আলাদা আলাদা ডিগ্রীলাভ করেছেন মাশাল্লা এতো বড় ডাক্তার
সাধারণ মানুষকে ঠকানোর কত অপচেষ্টা।

ডাক্তার না ডাকাত।।

বাইতুল্লাহতে জানাযার জন্য অপেক্ষমান — সাদা কাফনের তিনটি লাশের মাঝেরটা একজন বাঙালীর। চার হাফেয সন্তানের পিতা তিনি। প্রায় ...
05/26/2022

বাইতুল্লাহতে জানাযার জন্য অপেক্ষমান —

সাদা কাফনের তিনটি লাশের মাঝেরটা একজন বাঙালীর। চার হাফেয সন্তানের পিতা তিনি। প্রায় এক যুগের বেশি সময় মক্কাতে বসবাস করার পর কয়েক বছর আগে তিনি দেশে ফিরে আসেন।

দেশে আসার এক দুই বছরের মাথায় তার কোলন ক্যান্সার ধরা পরে। ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য তাকে যখন ভারতে যাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়, তিনি প্রথম কিছুতেই রাজী ছিলেন না। সেই দেশের মাটিতে তার মৃত্যু হলে, সেখানেই তাকে কবর দেয়া হবে, তিনি সেটা মানতে পারতেন না। ক্যামো শুরুর আগেও ক্যামো দিতে চান নি, তার দাড়ী পড়ে যেতে পারে, এই ভয়ে।

তার সবচেয়ে ছোট ছেলের ১৯/২০ পারা হিফয হওয়ার পর পড়া আগাচ্ছিল না। তিনি প্রায়ই তখন তার আশেপাশের মানুষদের বলতেন, আমার সব ছেলে মেয়েদের হাফিয হিসেবে দেখা পর্যন্ত যেন আল্লাহ আমাকে হায়াত দেন। আল্লাহ তাআলা তার সেই ইচ্ছাকে পুর্ন করে দেন। তার ছোট ছেলে আব্দুর রহমান তারই উপস্থিতিতে হিফযের শেষ সবক শোনায়।

তার মৃত্যুর এক মাস আগে….

অসুস্থতার মাত্রা অন্য সময়ের মতই। ক্যান্সার আস্তে আস্তে গোটা শরিরে ছড়িয়ে যাচ্ছে, একজন ফার্মাসিস্ট হওয়ার সুবাদে ডাক্তারি রিপোর্টগুলো তিনি দেখেই বুঝতেন। এরকম সময় হঠাৎ তিনি জানতে পারলেন, তার পরিচিত একটি গ্রুপ উমরাহতে যাচ্ছে। তিনি তার স্ত্রীকে জানালেন, তিনিও যেতে চান। সবাই মানা করলো। এই অসুস্থতা নিয়ে অনেক কষ্ট হবে। তিনি নাছোড়বান্দা, যাবেনই।

তার পাসপোর্টের মেয়াদ ছিল না, রিনিউ করতে হবে। অবশেষে মাত্র দুই দিনে সেই পাসপোর্ট রিনিউ করা হয়, ভিসা হয়ে যায়, তিনি গায়ে জড়ান ইহরামের চাদর। উমরাহ ঠিকঠাক ভাবে শেষ করার পর একদিন পর্যন্ত তিনি কথা বার্তা বলেছেন। এরপরই তার যবান বন্ধ হয়ে যায়। আসরের আযান চলাকালিন সময় মক্কাতেই তার ইন্তেকাল হয়।

একজন মানুষ তার জীবনকে যদি আল্লাহর সন্তুষ্টির পথে পরিচালিত করে, তার মৃত্যুটাও তেমন সুন্দরভাবেই হয়। উমরার টাইমিংটা, অসম্ভব দ্রুততার সাথে ভিসা পাসপোর্ট হয়ে যাওয়া, ভাল ভাবে উমরা শেষ করতে পারা, এসব কিছু একটা দিকেই ইশারা করে, আল্লাহ তার প্রিয় বান্দাকে তার প্রিয় করেই নিয়েছেন। আমরা অনেকে মনে করি, মৃত্যুর পুর্বে কালিমা বলতে পারলেই কেবল সেটা সৌভাগ্যের মৃত্যু। অথচ হাদিসের ভাষ্য অনুযায়ী, যে কোন নেক কাজ করার পর যদি কেউ মারা যায়, সেই মৃত্যুও মুবারক।

আল্লাহ তাআলা আমাদের সবার অত্যন্ত শ্রদ্ধাভাজন কাজী মনসুর সাহেবের কবরকে জান্নাতের বাগান বানিয়ে দিন। জান্নাতুল ফিরদাউসে তাকে স্থান দান করুন। সেই সাথে আমাদের মৃত বাবা-মা, দাদা দাদী, আত্মীয়স্বজনদেরকেও আল্লাহ মাফ করে দিন এবং জান্নাতুল ফিরদাউসে তাদেরকে উচ্চ স্থান করুন, আমীন।

©

সন্তান না হওয়ায় একঘরে করেছিল সমাজ, ‘প্রতিশোধ’ নিয়ে পদ্মশ্রী পেলেন থিম্মাক্কা। তিনি একজন ভারতীয় মহিলা। বিবাহিত জীবনের ২৫ ...
05/26/2022

সন্তান না হওয়ায় একঘরে করেছিল সমাজ, ‘প্রতিশোধ’ নিয়ে পদ্মশ্রী পেলেন থিম্মাক্কা। তিনি একজন ভারতীয় মহিলা।

বিবাহিত জীবনের ২৫ বছর পরেও কোনও সন্তান হয়নি। সমাজ তাঁকে একঘরে করে গিয়েছিল। গর্ভধারণ করতে না পারলে নাকি নারী পূর্ণতা পান না, আজও প্রচলিত সমাজে অনেকেরই ধারণা এমনটাই। কিন্তু তাকেই পাল্টে দিলেন থিম্মাক্কা। সমাজের প্রতি নিলেন মধুর প্রতিশোধ।

কর্নাটকের গুব্বি তালুকের বাসিন্দা বেকাল চিক্কাইয়ার সঙ্গে থিম্মাক্কার বিয়ে হয়েছিল। সন্তান না হওয়ায় স্বামীর সঙ্গে অনন্য এক সিদ্ধান্ত নেন তিনি। ঠিক করেন, গাছ লাগাবেন। আর তাদেরই বড় করবেন সন্তানস্নেহে।

থিম্মাক্কার কিন্তু কোনও ডিগ্রি নেই। গ্রামের আর পাঁচজন দরিদ্র ভারতীয় মহিলার মতোই শ্রমিক হিসেবে কাজ করে রুটিরুজি চালানো এক নারী।

ভূমিহীন দিনমজুর এই দম্পতি সমাজেও ছিলেন একঘরে। কথা বলার সমস্যা থাকায় চিক্কাইয়াকে তার পড়শিরা বলত তোতলা চিক্কাইয়া। সমাজ বিচ্ছিন্ন স্বভাব-লাজুক চিক্কান্না আর থিম্মাক্কার দিনগুলো ছিল বেশ একলা, বিষণ্ণ। তখন থেকেই সিদ্ধান্ত নেন সমাজের বঞ্চনার জবাব দেওয়ার। তখনই মাথায় আসে গাছ লাগানোর বিষয়টি।

শুরুটা কী ভাবে হল? প্রথম বছরে ১০টি, দ্বিতীয় বছরে ১৫টি, তৃতীয় বছরে ২০টি বটগাছের চারা লাগালেন। এক সময় এই সন্তানদের দেখাশোনার জন্য দিনমজুরির কাজও ছেড়ে দেন চিক্কাইয়া। থিম্মাক্কা রোজগার করতেন, আর বাড়ি ফিরে স্বামীর সঙ্গে সন্তানদের দেখভাল করতেন।

রোজ প্রায় চার কিলোমিটার পেরিয়ে তাঁরা এই গাছগুলিতে জল দেওয়ার কাজ করতেন। গবাদি পশুর হাত থেকে চারাগাছগুলিকে বাঁচাতে কাঁটাতারের বেড়াও বানিয়ে দেন।

তাঁর গ্রাম হুলিকাল থেকে কুদুর অবধি ২৮৪টি বটগাছের চারা লাগিয়ে বড় করেছেন তিনি। প্রায় চার কিলোমিটার পথ জুড়ে দাঁড়িয়ে থাকা ছায়াময় সুবিশাল গাছগুলি থিম্মাক্কার ভালোবাসারই নিদর্শন, বলেন পথচারীরাও

১৯৯১ সালে স্বামী মারা যান। থিম্মাক্কা একা রইলেন গাছ সন্তানদের পরিচর্যায়। তাঁর কাজের প্রতি সম্মান দেখিয়ে গ্রামবাসীরা তাঁকে ‘সালুমারাদা’, বলে ডাকতে শুরু করলেন। কন্নড় ভাষায় যার অর্থ ‘গাছেদের সারি।’

সালুমারাদা থিম্মাক্কা লোকচক্ষুর আড়ালেই রয়ে যেতেন। ১৯৯৬ সালে ‘জাতীয় নাগরিক সম্মান’ ভূষিত হওয়ার পর তাঁর কথা জানতে পারে গোটা দেশ। বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সংস্থা এগিয়ে আসে তাঁকে সাহায্য করতে।
^
বর্তমানে থিম্মাক্কার গাছগুলিকে দেখভালের দায়িত্ব নিয়েছে কর্নাটক সরকার। সেই প্রসঙ্গে একটি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছিলেন, সন্তানদের নিজে প্রতিপালন করতে পারলেই তিনি খুশি হতেন। কারণ কখনওই কারও সাহায্য চাননি তাঁরা।

২০১৬ সালে বিবিসি-র বিচারে বিশ্বের ১০০ জন প্রভাবশালী মহিলাদের তালিকায় রয়েছে সালুমারাদা থিম্মাক্কার নামও। আন্তর্জাতিক স্তরের উদ্যোগে থিম্মাক্কা ফাউন্ডেশনেও তৈরি হয়েছে বিদেশের বিভিন্ন জায়গায় ।

বিবিসির তথ্য অনুযায়ী, গত ৮০ বছরে প্রায় ৮০০০ গাছ পুঁতে তাদের বড় করে তুলেছেন ১০৬ বছর বয়সী এই বৃক্ষমাতা। স্কুলে যাওয়ার সুযোগ পর্যন্ত হয়নি। সেই থিম্মাকাই এ বার পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হয়েছেন পরিবেশ রক্ষা ও উন্নয়নের কারণেই।
পদ্মশ্রী ছাড়া আন্তর্জাতিক স্তরেও বহু পুরস্কার পেয়েছেন এই বৃক্ষমাতা।

সূত্র - ইন্টারনেট

05/26/2022
Lol

বাবা বিড়ি বানাইছে কি দিয়া!

৯০ দশকের ছেলে মেয়েরাই চিনবে!❣️
05/26/2022

৯০ দশকের ছেলে মেয়েরাই চিনবে!❣️

আমি বিশ্বাস করি, পড়ে দেখতে পারেন -আপনি কি জানেন টাইটানিক মুভির সবথেকে ভাগ্যবান লোকটা কে?সে কি জ্যাক? যে কিনা সবথেকে সুন্...
05/24/2022

আমি বিশ্বাস করি, পড়ে দেখতে পারেন -

আপনি কি জানেন টাইটানিক মুভির সবথেকে ভাগ্যবান লোকটা কে?

সে কি জ্যাক? যে কিনা সবথেকে সুন্দরী মেয়ে রোজের প্রেমে পড়েছিল? একদম না!

তবে কি রোজ? যে কিনা মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচার জন্য জ্যাককে পেয়েছিলো? এবারও না!

জ্যাক বা রোজ কেউই না।

ভাগ্যবান লোকটি সেই অপরিচিতজন যে জুয়ায় জ্যাকের কাছে তার টিকিটটি হেরে গিয়েছিলো। যদি সে ওই জাহাজের টিকেট জিতে যেতো তাহলে হয়তো তাকে ঐ হিমশীতল পানিতে ডুবে মরতে হতো।

মাঝেমধ্যে হেরে যাওয়া ভালো।
- আপনি যদি আপনার পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়ে থাকেন।
- আপনি যদি আপনার লাইফে হেরে গিয়ে থাকেন।
- আপনি যদি আপনার লক্ষ্যে না পৌঁছাতে পেরে থাকেন।
- আপনি যদি আপনার ভালোবাসা হারিয়ে থাকেন।

সবকিছুই কোন না কোন কারণে ঘটে থাকে। মাঝেমধ্যে হেরে যাওয়াটাও ভালো। হতে পারে স্রষ্টা আপনাকে আরও বড় কোন বিপদের হাত থেকে রক্ষা করলেন।

সিএনজি দিয়ে জমি চাষএ শুধু চিত্রনায়ক রিয়াজের ইউরোপেই সম্ভব😀😀ছবি তুলেছেন- চিত্রনায়ক রিয়াজ।
05/17/2022

সিএনজি দিয়ে জমি চাষ
এ শুধু চিত্রনায়ক রিয়াজের ইউরোপেই সম্ভব😀😀

ছবি তুলেছেন- চিত্রনায়ক রিয়াজ।

💚 গর্বিত কৃষক 💚কেউ হয়তো ভাবতেই পারেন ছবির মানুষটি এমনিতেই বসে আছে কিন্তু না উনি নিজের উৎপাদিত কৃষিপণ্য গ্রামীণ হাটবাজারে...
05/15/2022

💚 গর্বিত কৃষক 💚
কেউ হয়তো ভাবতেই পারেন ছবির মানুষটি এমনিতেই বসে আছে কিন্তু না উনি নিজের উৎপাদিত কৃষিপণ্য গ্রামীণ হাটবাজারে বসে বিক্রি করছেন।

ছবিতে দেখতে পাওয়া লোকটির নাম ড. আবু বকর সিদ্দিক ডাক নাম প্রিন্স। লোকটি একজন আপাদমস্তক কৃষক। শহুরে আয়েশী জীবন ত্যাগ করে গ্রামেই নিয়মিত বসবাসে অভ্যস্ত হয়েছেন। দেশসেরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ, এমবিএ এবং পিএইচডি ডিগ্রী সম্পন্ন করে কৃষিকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন তিনি।

ফুলবাড়ীয়ার রাঙ্গামাটিয়া ইউনিয়নে 'কিষাণ সমন্বিত কৃষি উদ্যোগ ' নামের একটি কৃষি খামারের উদ্যোক্তা এই ভদ্রলোক। মূলত, বিদেশী ফল ড্রাগনকে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনের জন্য এটি বেশ পরিচিতি পেয়েছে।

কৃষি নিয়ে তাঁর বিভিন্ন কর্মকান্ড প্রমাণ করে তিনি এ কাজে গর্ববোধ করেন। কৃষি কাজের পাশাপাশি একটা বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনার কাজও করেন।

দেশের তরুণদের কৃষিকাজে উৎসাহিত করতে তাঁর এ প্রচেষ্টা অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে।

05/13/2022

এক সংগে প্রেগ্ন্যান্ট নার্স -চিকিৎসক সহ ১১ জন।।

কমেন্টে বিস্তারিত।।

নিউইয়র্কে কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে বাংলাদেশি ছাত্রীকে দুর্বৃত্তের ধাক্কা, ট্রেনে কাটা পড়ে মর্মান্তিক মৃত্যু--+-++নিউইয়র্...
05/13/2022

নিউইয়র্কে কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে বাংলাদেশি ছাত্রীকে দুর্বৃত্তের ধাক্কা, ট্রেনে কাটা পড়ে মর্মান্তিক মৃত্যু
--+-++
নিউইয়র্কের ব্রুকলিনে বাংলাদেশী হান্টার কলেজের ছাত্রী জিনাত হোসেন (২৪) সাবওয়ে ট্রেন লাইনে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয় দুর্বত্তরা। ট্রেনের চাকায় কাটা পড়ে হয়ে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় সময় বুধবার আনুমানিক রাত ৯ টায় এ ঘটনা ঘটে। কলেজ থেকে বাসায় ফেরার পথে ট্রেন স্টেশনে মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ব্রুকলিনে নিউইয়র্ক পুলিশের সাথে বাংলাদেশী কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের মরদেহ হস্তান্তরের বৈঠক চলছে। নিহত কলেজ ছাত্রী নিউইয়র্কে ব্রহত্তর কুমিল্লা সমিতির সভাপতি ডাঃ এনামুল হকের শালিকার মেয়ে বলে জানা গেছে। নিহত জিনাত বাবামাসহ নিউইয়র্কের ব্রুকলিনে 8th এভিনিউতে বসবাস করতেন। তার বাড়ি কুমিল্লার দাউদকান্দির জগতপুর গ্রামে। তার বাবার নাম আমির হোসেন।
নিহত জিনাত হোসেনের খালু বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির সভাপতি ডাঃ এনামুল হক জানান, নিহত জিনাত ২০১৫ সালে বাবা মা'র সাথে নিউইয়র্কে আসে।
তার বাবা আমির হোসেন ঢাকার ঠাটারি বাজারে ঔষধ ব্যবসা ছিলো। আমির হোসেনের এক ছেলে এক মেয়ে। ছেলে ঢাকা বংগবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে পোস্ট গ্র‍্যাজুয়েশন করছে। একমাত্র মেয়েকে হারিয়ে শোকে মুহ্যমান জিনাতের বাবা আমির হোসেন ও মা জেসমিন হোসেন হিরা। শোক ও বিক্ষোব্ধ নিউইয়র্কে বাংলাদেশী কমিউনিটি। পুলিশ বলছে ট্রেন স্টেশনে ছিনতাইকারীরা তার ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার সময় ছিটকে পড়ে ট্রেনে লাইনে কাটা পড়ে মৃত্যু হয়।
তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে লাশ হস্তান্তর ও বিস্তারিত জানা যাবে। ডাঃ এনামুল হক বলেন, পুলিশ বলছে ব্রুকলিনের ইউটিকা স্টেশন থেকে জিনাতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। কিন্তু কেন কিভাবে ইউটিকা ম্যানহাটন থেকে ইউটিকা স্টেশনে গেলো তা বুঝা যাচ্ছে না।
🇺🇸🇧🇩

স্যালুট টিটিই শফিকুল ইসলামকেম‌ন্ত্রীর আ‌ত্মীয়‌কে বিনা টি‌কি‌টে ভ্রম‌নের সময় আইন অনুযায়ী জ‌রিমানা আদায় করা ভ্রাম্যমাণ টিক...
05/11/2022

স্যালুট টিটিই শফিকুল ইসলামকে
ম‌ন্ত্রীর আ‌ত্মীয়‌কে বিনা টি‌কি‌টে ভ্রম‌নের সময় আইন অনুযায়ী জ‌রিমানা আদায় করা ভ্রাম্যমাণ টিকিট পরীক্ষক (টিটিই) শফিকুল ইসলাম ইসলামী বিশ্ব‌বিদ্যালয়ে আইন বিভাগ থে‌কে ‌তি‌নি মাস্টার্স ক‌রে‌ছেন। বিশ্ব‌বিদ্যালয়ে পড়াকালীন সম‌য়েই রেলও‌য়ে‌তে তি‌নি চাকুরী পান। প‌রব‌র্তিতে চাকুরীরত অব‌স্থায় মাস্টার্স পাশ ক‌রেন। ক্লাস সিক্স থে‌কেই এলাকায় টিউশ‌নি ক‌রে লেখাপড়ার খরচ ও সংসা‌রের খরচ চালাতেন। শফিকুল ইসলামের বা‌ড়ি ঝিনাইদ‌হের শৈলকুপা উপ‌জেলার সারু‌টিয়া গ্রা‌মে। একটি টি‌নের ঘর যার ভিটা মা‌টির । তিন কক্ষ বি‌শিষ্ট এ ঘ‌রেই থা‌কেন তার মা,বাবা ও দাদী । শুধুমাত্র বাড়ীর ১০ শতক জ‌মিই তার সম্বল। তার বাবা রজব আলী অন্যের জমি চাষ করে সংসার চালিয়েছেন।
শফিকুলের সততার কথা গ্রামবাসীর মু‌খে মু‌খে। ম‌ন্ত্রীর আ‌ত্মীয়‌কে বিনা টি‌কি‌টে ভ্রম‌নের সময় আইন অনুযায়ী জ‌রিমানা আদায় করেছিলেন তিনি। এ কারণে শফিকুলকে বর্খাস্ত করা হয়। মিডিয়াতে বিষয়টি প্রচার হলে তাকে তড়িঘড়ি করে পূনঃবহাল করা হয়। সে তো কোনও অন্যায় ক‌রে‌ন নি। শফিকুল ইসলামের এই সততার জন্য সরকারের উচিত পুরষ্কৃত করা।
শফিকুল ইসলামের এ দৃষ্টান্ত অন্যদেশে হলে অবশ্যই তিনি পুরষ্কৃত হতেন। আসলে দেশটায় সততার ভাত নাই।
টিটিই শফিকুল ইসলামের প্রতি রইল জনগণের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা।
©তুহিন

Address

2006 Hoover RD
Warren, MI
48090

Telephone

+12138201848

Website

facebook.com

Products

news

Alerts

Be the first to know and let us send you an email when T u h i n a t i o n.com posts news and promotions. Your email address will not be used for any other purpose, and you can unsubscribe at any time.

Contact The Business

Send a message to T u h i n a t i o n.com:

Videos

Nearby media companies


Other Warren media companies

Show All

Comments

*** Visa for ITALY *** (100% Reach payment) * 3 Months Italian eVisa * Emirates Air Tickets (Dhaka-Dubai-Rome) * Flight will be within 45 days.... * 15 lac only # 01758301040
Vote for Moulvibazar -3