Md Julfikar ali joy

Md Julfikar ali joy Contact information, map and directions, contact form, opening hours, services, ratings, photos, videos and announcements from Md Julfikar ali joy, Media, New York, NY.

মা – কাজী নজরুল ইসলামযেখানেতে দেখি যাহামা-এর মতন আহাএকটি কথায় এত সুধা মেশা নাই,মায়ের মতন এতআদর সোহাগ সে তোআর কোনোখানে কে...
09/05/2023

মা
– কাজী নজরুল ইসলাম

যেখানেতে দেখি যাহা
মা-এর মতন আহা
একটি কথায় এত সুধা মেশা নাই,
মায়ের মতন এত
আদর সোহাগ সে তো
আর কোনোখানে কেহ পাইবে না ভাই।

হেরিলে মায়ের মুখ
দূরে যায় সব দুখ,
মায়ের কোলেতে শুয়ে জুড়ায় পরান,
মায়ের শীতল কোলে
সকল যাতনা ভোলে
কত না সোহাগে মাতা বুকটি ভরান।
কত করি উৎপাত
আবদার দিন রাত,
সব সন হাসি মুখে, ওরে সে যে মা!
আমাদের মুখ চেয়ে
নিজে রন নাহি খেয়ে,
শত দোষে দোষী তবু মা তো ত্যজে না।

ছিনু খোকা এতটুকু,
একটুতে ছোটো বুক
যখন ভাঙিয়া যেত, মা-ই সে তখন
বুকে করে নিশিদিন
আরাম-বিরামহীন
দোলা দিয়ে শুধাতেন, ‘কী হল খোকন?’

আহা সে কতই রাতি
শিয়রে জ্বালায়ে বাতি
একটু অসুখ হলে জাগেন মাতা,
সবকিছু ভুলে গিয়ে
কেবল আমারে নিয়ে
কত আকুলতা যেন জগন্মাতা।

যখন জনম নিনু
কত অসহায় ছিনু,
কাঁদা ছাড়া নাহি জানিতাম কোনো কিছু,
ওঠা বসা দূরে যাক –
মুখে নাহি ছিল বাক,
চাহনি ফিরিত শুধু মা-র পিছু পিছু!

তখন সে মা আমার
চুমু খেয়ে বারবার
চাপিতেন বুকে, শুধু একটি চাওয়ায়
বুঝিয়া নিতেন যত
আমার কী ব্যথা হত,
বলো কে এমন স্নেহে বুকটি ছাওয়ায়!

তারপর কত দুখে
আমারে ধরিয়া বুকে
করিয়া তুলেছে মাতা দেখো কত বড়ো,
কত না সুন্দর
এ দেহ এ অন্তর
সব মোরা ভাই বোন হেথা যত পড়।

পাঠশালা হতে যবে
ঘরে ফিরি যাব সবে,
কত না আদরে কোলে তুলি নেবে মাতা,
খাবার ধরিয়া মুখে
শুধাবেন কত সুখে
‘কত আজ লেখা হল, পড়া কত পাতা?’

পড়ে লেখা ভালো হলে
দেখেছ সে কত ছলে
ঘরে ঘরে মা আমার কত নাম করে!
বলে, ‘মোর খোকামণি।
হিরা-মানিকের খনি,
এমনটি নাই কারও!’ শুনে বুক ভরে!

গা-টি গরম হলে
মা সে চোখের জলে
ভেসে বলে, ‘ওরে জাদু কী হয়েচে বল!’
কত দেবতার ‘থানে’
পিরে মা মানত মানে –
মাতা ছাড়া নাই কারও চোকে এত জল।

যখন ঘুমায় থাকি
জাগে রে কাহার আঁখি
আমার শিয়রে, আহা কীসে হবে ঘুম!
তাই কত ছড়া গানে
ঘুম-পাড়ানিরে আনে,
বলে, ‘ঘুম! দিয়ে যা রে খুকু-চোখে চুম!’

দিবানিশি ভাবনা
কীসে ক্লেশ পাব না,
কীসে সে মানুষ হব, বড়ো হব কীসে;
বুক ভরে ওঠে মার
ছেলেরই গরবে তাঁর,
সব দুখ সুখ হয় মায়ের আশিসে।

আয় তবে ভাই বোন,
আয় সবে আয় শোন
গাই গান, পদধূলি শিরে লয়ে মা-র;
মার বড়ো কেউ নাই –
কেউ নাই কেউ নাই!
নত করি বল সবে ‘মা আমার! মা আমার!’

09/04/2023
অভিশাপ- কাজী নজরুল ইসলাম---(দোলনচাঁপা কাব্যগ্রন্থ)যেদিন আমি হারিয়ে যাব, বুঝবে সেদিন বুঝবে,অস্তপারের সন্ধ্যাতারায় আমার ...
09/04/2023

অভিশাপ
- কাজী নজরুল ইসলাম---(দোলনচাঁপা কাব্যগ্রন্থ)

যেদিন আমি হারিয়ে যাব, বুঝবে সেদিন বুঝবে,
অস্তপারের সন্ধ্যাতারায় আমার খবর পুছবে-
বুঝবে সেদিন বুঝবে!
ছবি আমার বুকে বেঁধে
পাগল হ’লে কেঁদে কেঁদে
ফিরবে মর” কানন গিরি,
সাগর আকাশ বাতাস চিরি’
যেদিন আমায় খুঁজবে-
বুঝবে সেদিন বুঝবে!

স্বপন ভেঙে নিশুত্‌ রাতে জাগবে হঠাৎ চমকে,
কাহার যেন চেনা-ছোঁওয়ায় উঠবে ও-বুকে ছমকে,-
জাগবে হঠাৎ চমকে!
ভাববে বুঝি আমিই এসে
ব’সনু বুকের কোলটি ঘেঁষে,
ধরতে গিয়ে দেখবে যখন
শূন্য শয্যা! মিথ্যা স্বপন!
বেদ্‌নাতে চোখ বুঁজবে-
বুঝবে সেদিন বুজবে।
গাইতে ব’সে কন্ঠ ছিঁড়ে আস্‌বে যখন কান্না,
ব’লবে সবাই-“ সেই য পথিক তার শেখানো গান না?’’
আস্‌বে ভেঙে কান্না!
প’ড়বে মনে আমার সোহাগ,
কন্ঠে তোমার কাঁদবে বেহাগ!
প’ড়বে মনে অনেক ফাঁকি
অশ্র”-হারা কঠিন আঁখি
ঘন ঘন মুছবে-
বুঝ্‌বে সেদিন বুঝবে!

আবার যেদিন শিউলি ফুটে ভ’রবে তোমার অঙ্গন,
তুলতে সে ফুল গাঁথতে মালা কাঁপবে তোমার কঙ্কণ-
কাঁদবে কুটীর-অঙ্গন!
শিউলি ঢাকা মোর সমাধি
প’ড়বে মনে, উঠবে কাঁদি’!
বুকের মালা ক’রবে জ্বালা
চোখের জলে সেদিন বালা
মুখের হাসি ঘুচবে-
বুঝবে সেদিন বুঝবে!
আসবে আবার আশিন-হাওয়া, শিশির-ছেঁচা রাত্রি,
থাকবে সবাই – থাকবে না এই মরণ-পথের যাত্রী!
আসবে শিশির-রাত্রি!
থাকবে পাশে বন্ধু স্বজন,
থাকবে রাতে বাহুর বাঁধন,
বঁধুর বুকের পরশনে
আমার পরশ আনবে মনে-
বিষিয়ে ও-বুক উঠবে-
বুঝবে সেদিন বুঝবে!

আসবে আবার শীতের রাতি, আসবে না ক আ সে-
তোমার সুখে প’ড়ত বাধা থাকলে যে-জন পার্শ্বে,
আসবে না ক’ আর সে!
প’ড়বে মনে, মোর বাহুতে
মাথা থুয়ে যে-দিন শুতে,
মুখ ফিরিয়ে থাকতে ঘৃণায়!
সেই স্মৃতি তো ঐ বিছানায়
কাঁটা হ’য়ে ফুটবে-
বুঝবে সেদিন বুঝবে!

আবার গাঙে আসবে জোয়ার, দুলবে তরী রঙ্গে,
সেই তরীতে হয়ত কেহ থাকবে তোমার সঙ্গে-
দুলবে তরী রঙ্গে,
প’ড়বে মনে সে কোন্‌ রাতে
এক তরীতে ছিলেম সাথে,
এমনি গাঙ ছিল জোয়ার,
নদীর দু’ধার এমনি আঁধার
তেম্‌নি তরী ছুটবে-
বুঝবে সেদিন বুঝবে!
তোমার সখার আসবে যেদিন এমনি কারা-বন্ধ,
আমার মতন কেঁদে কেঁদে হয়ত হবে অন্ধ-
সখার কারা-বন্ধ!
বন্ধু তোমার হান্‌বে হেলা
ভাঙবে তোমার সুখের মেলা;
দীর্ঘ বেলা কাটবে না আর,
বইতে প্রাণের শান- এ ভার
মরণ-সনে বুঝ্‌বে-
বুঝবে সেদিন বুঝ্‌বে!

ফুট্‌বে আবার দোলন চাঁপা চৈতী-রাতের চাঁদনী,
আকাশ-ছাওয়া তারায় তারায় বাজবে আমার কাঁদ্‌নী-
চৈতী-রাতের চাঁদ্‌নী।
ঋতুর পরে ফির্‌বে ঋতু,
সেদিন-হে মোর সোহাগ-ভীতু!
চাইবে কেঁদে নীল নভো গা’য়,
আমার মতন চোখ ভ’রে চায়
যে-তারা তা’য় খুঁজবে-
বুঝ্‌বে সেদিন বুঝ্‌বে!

আস্‌বে ঝড়, নাচবে তুফান, টুটবে সকল বন্ধন,
কাঁপবে কুটীর সেদিন ত্রাসে, জাগবে বুকে ক্রন্দন-
টুটবে যবে বন্ধন!
পড়বে মনে, নেই সে সাথে
বাঁধবে বুকে দুঃখ-রাতে-
আপনি গালে যাচবে চুমা,
চাইবে আদর, মাগ্‌বে ছোঁওয়া,
আপনি যেচে চুমবে-
বুঝবে সেদিন বুঝবে।
আমার বুকের যে কাঁটা-ঘা তোমায় ব্যথা হান্‌ত,
সেই আঘাতই যাচবে আবার হয়ত হ’য়ে শ্রান–
আসবে তখন পান’।
হয়ত তখন আমার কোলে
সোহাগ-লোভে প’ড়বে ঢ’লে,
আপনি সেদিন সেধে কেঁদে
চাপ্‌বে বুকে বাহু বেঁধে,
চরণ চুমে পূজবে-
বুঝবে সেদিন বুঝবে!

05/14/2023

লাম্বা হওয়া খুবই important matter

09/18/2022

নয়নের সম্মুখে তুমি নাই ....😭

03/26/2022

দল - মত - বিশ্বাস - ধর্ম - দর্শন যার যার,, কিন্তূ দেশটা আমাদের সবার।

01/04/2022

এক কৃষকের বাড়িতে ইঁদুর গিয়ে বাসা বাধে.কৃষক ইঁদুরটি কে দেখার পর.পরের দিন বাজার থেকে ফাঁদ কিনে আনে।আর ফাঁদটি কে জায়গা মতো রাতে খাবার দিয়ে রেখে দেওয়া হয়। খাবারের গন্ধে গন্ধে ইঁদুর সেখানে যায়। যাওয়ার পরে ইঁদুর বুঝতে পারে যে এটা তার জন্য ফাঁদ পেতে রাখা হয়েছে। তারপর ইঁদুর দৌড়ে যায় কবুতরের কাছে গিয়ে বলে কবুতর কবুতর দেখো কৃষক আমার জন্য ফাঁদ পেতে রেখেছে। কবুতর বলে এটা আমার কি আমি কি ওই ফাঁদে পা দিবো নাকি। এটা তোমার সমস্যা তখন ইঁদুর মনে কষ্ট নিয়ে যায় মুরগের কাছে। মুরগ কে গিয়ে বলে মুরগ মুরগ দেখো কৃষক আমার জন্য ফাঁদ পেতে রেখেছে।মুরগ বলে তাতে আমার কী এটা তোমার সমস্যা।এখান থেকে যাও। তারপর ইঁদুর মনে কষ্ট নিয়ে যায় ছাগলের কাছে ছাগল কে গিয়ে বলে. আর ছাগল হাসতে হাসতে লুটোপুটি খেতে থাকে। তারপর ইঁদুর মনে কষ্ট নিয়ে চলে যায় অনেক দূরে। তারপরের দিন রাতে ওই ফাঁদে একটি সাপ আটকা পরে। হঠাৎ শব্দ শুনে তার স্ত্রী দৌড়ে আসে। অন্ধকারের মধ্যে সাপের লেনজাকে ইঁদুরের লেনজা ভেবে ধরে ফেলে তখনই তার স্ত্রী কে সাপটি ছবল মারে। তারপরের দিন উজা আসে উজা এসে বলে তাকে কবুতরের মাংস খাওয়াতে হবে তারপর সেই কবুতর টা কে জবাই করা হয় কবুতর টি এখন রান্নার পাতিলে। তারপর তার স্ত্রীর খারাপ সংবাদ শুনে তার বাবার বাড়ি থেকে মানুষ আসে। তারপর সেই মানুষদের কে খাওয়ানোর জন্য সেই মুরগটা কে জবাই করা হয়. মুরগটিও এখন রান্নার পাতিলে। তার 3দিন পরে তার স্ত্রী মারা যায়. তারপর তার স্ত্রীর মিলাদের জন্য সেই ছাগল টা কেউ জবাই করা হয় ছাগলটি ও এখন রান্নার পাতিলে। আর ইঁদুর তো অনেক আগেই পালিয়ে গেছিলো সেই গ্রাম ছেড়ে। এখান থেকে আমার যা শিখলাম কেউ বিপদে পড়লে তাকে সাহায্য করুন. সহযোগিতা করুন। হতে পারে সমস্যাটা শুধুই তার তবুও সাহায্য করুন. মানুষ মানুষের জন্য। আরো একটি কথা বলতে চাই করোনা ভাইরাস যখন প্রথম চায়না তে এসেছিলো তখন আমারা হাসাহাসি করতাম। যে তারা সাপ পোকামাকড় ইত্যাদি খায় বলে তাদের সমস্যা। কিন্তুু দেখেন সেই করোনা ভাইরাস আজ পুরো বিশ্বকে কাপিয়ে দিয়ে গেলো । তাই কারো সমস্যা দেখে কখনোই হাসাহাসি করবেন না। পারলে সহযোগিতা করবেন। এটাই সবথেকে ভালো হবে।

01/04/2022

রাজনৈতিক সমস্যা
রাজপথেই একমাত্র সমাধান
আন্দোলন এর কোন বিকল্প নাই

04/30/2021

দিল্লির আকাশে সেই দিনের ধোয়াঁর আর আজকের ধোয়াঁর মধ্যে অনেক পার্থক্য 😢😢

প্রকৃতির প্রতিশোধ খুব ভয়ানক হয় 📌📌 #বাবরি_মসজিদ

Address

New York, NY

Alerts

Be the first to know and let us send you an email when Md Julfikar ali joy posts news and promotions. Your email address will not be used for any other purpose, and you can unsubscribe at any time.

Contact The Business

Send a message to Md Julfikar ali joy:

Videos

Share

Category

Nearby media companies


Other Media in New York

Show All

You may also like